ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

গত চার দিন ধরে গাজায় ইসরাইলের আগ্রাসন অব্যাহত আছে – এ পর্যন্ত ইসরাইলি হামলায় গাজায় একচল্লিশ জন মারা গেছেন এদের মধ্যে আট জন শিশু ও একজন গর্ভবতী মহিলা রয়েছেন (সুত্র : রয়টার্স )। এছাড়াও বিবিসির আরব বিভাগের একজন সাংবাদিকের দশ মাসের এক শিশু এই হামলায় নিহত হয়েছে। এপর্যন্ত তিনশত জনের অধিক গুরুতরভাবে আহত হয়েছেন । (সুত্র : আল -জাজিরা) । শেষ খবর পাবা পর্যন্ত ইসরায়েল ১৬ হাজার রিজার্ভ সেনাকে ডেকে পাঠানোর পর আরো ৭৫ হাজার রিজার্ভ সেনাকে সক্রিয় হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে (বিডি নিউ৛ )। গাজার সীমান্তে ট্যাংক ও যুদ্ধসরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে, ধারনা করা হচ্ছে ইসরায়েল বড় ধরনের ভূমি হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এরূপ হামলা হলে ব্যাপক প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে। ইসরায়েলের হামলার প্রতিবাদে হামাসের যোদ্ধারাও রকেট হামলা চালাচ্ছে যদিও তা ইসরায়েলের তেমন কোনও ক্ষতি করতে পারছেনা। এ পর্যন্ত তিন জন ইসরাইলি নিহিত হয়েছেন।

কিছুদিন আগে আমরা মালালার ঘটনা নিয়ে মিডিয়াতে ও বিশ্বব্যাপী ব্যাপক তোলপাড় দেখেছি। অথচ এখন তাদের অনেকেই নিরব । যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য ইসরায়েলের এই হত্যাযজ্ঞের পেছনে তাদের সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। জাতিসংঘ কোনও কার্যকর ভূমিকা রাখতে পরছেনা। সবচেয়া আশ্চর্য হচ্ছি মিডিয়ার ভূমিকা দেখে। বিশ্বব্যাপী ও বাংলাদেশের অনেক মিডিয়া ও ব্লগার এক মালালাকে নিয়ে যেভাবে লিখেছেন ও প্রচার করেছেন গাজার শিশুদের নিয়ে তাদের সেভাবে উদ্বিগ্ন দেখছিনা । কেন এখন মানবতা ও বিবেক গাজার ব্যাপারে নিরব?!

আসুন আর কিছু না করতে পারি সবাই মিলে এই বর্বর হামলার প্রতিবাদ জানাই। আসুন প্রার্থনা করি আল্লাহর কাছে যেন গাজার সবাইকে এই অগগ্রাসন থেকে তিনি রক্ষা করেন ,গাজার শিশুরা যেন নিরাপদে থাকে।