ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বিরোধীদলের মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে দেশে চলছে এক অরাজকতা। আর তাই তো এই অরাজকতা রুখতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে । তার মধ্যে খাবার হোটেল , আবাসিক হোটেল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন সরকার।

ওপর দিকে সকল বাস টার্মিনাল ও লঞ্চ ঘাটে কোন প্রকার যানবহন ঢুকতে দিচ্ছেনা স্থানীয় সরকার। গত ২ দিন যাবত সারাদেশ থেকে ২৫০০ জন কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা বলেন, মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে দেশে তারা অরাজকতা সৃষ্টি করার পরিকল্পনা নিয়েছে । তাই তিনি তার নেতা কর্মীদের সজাগ থাকতে বলেছেন । যাতে ১২ই মার্চে বিরোধীদল কোন অরাজকতা যেন সৃষ্টি না করতে পারে।

তিনি ছাত্রলীগকে সবসময় মাঠে থাকতে বলেছেন। সকল পাড়া ও মহল্লা থেকে যেন বিএনপি কোন মিছিল না বের করতে পারে। সরকার আরও বলেছেন জনগনের নিরাপত্তার জন্য তিনি আরও কঠিন ব্যবস্তা নিবেন।

লঞ্চ যাত্রীদের ওপর শ্রমিক লীগের হামলায় কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে । এই ভাবে এখন তারা বিরোধীদলকে ঢাকাই ঢুকতে দিচ্ছেনা।

বিরোধীদলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেন, তাদের মহাসমাবেশ কে সুন্দর ভাবে করতে না দেবার জন্য সরকার তাদের কে বিভিন্ন ভাবে বাঁধা দিচ্ছে। বাস বন্ধ , হোটেল বন্ধ করে আমাদের সমাবেশ কে বন্ধ করতে পারবে না। ঢাকা আসার পথে যেখান থেকে বাঁধা দিবে সরকার সেইখান থেকেই আন্দোলন শুরু করার কথা বলেছেন তিনি।

পুলিশি তৎপরতা……
১২ই মার্চকে কেন্দ্র করে চলছে পুলিশি তৎপরতা। সারা দেশ থেকে তারা বিভিন্ন ভাবে মানুষদের কে গ্রেপ্তার করসে। এর মধ্যে অনেক সাধারন জনগনও রয়েছে। এ পর্যন্ত ২৫০০ জন কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাছাড়া ঢাকার বিভিন্ন ছাত্রাবাসে পুলিশ তল্লাশি চালিয়েছে। পুলিশি আতংকে সাধারন শিক্ষারতিরা বাইরে বাহির হচ্ছেনা।