ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম-ইআরএফ আয়োজিত বাজেট পরবর্তী আলোচনা সভায় এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আনিসুল হক বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে নির্মিত ভাড়াভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বা রেন্টাল পাওয়ার প্ল্যান্টগুলোই দেশের অর্থনীতিকে বাঁচিয়ে রেখেছে।

“ছয় বছর ধরে আমি এ ব্যবসার (ভাড়াভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন) সঙ্গে জড়িত। ব্যবসায়ীক অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে আমি গবেষণা করে দেখেছি, যদি সরকার এসব প্রকল্প না করতো, তাহলে জিডিপিতে ১ লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হতো।”

আনিসুল হকের মত লোক কি আর মিছা কতা কইব??? জাউকগা আঁতকা একটা কতা মনে পরল……।। ছোডকালে আমি আছিলাম চিপা শয়তান…।। স্কুলে শয়তানি বান্দ্রামী সবই করতাম, তয় বাসায় কেউ টের পাইত না তার উপরে কথা বার্তা কইতে পারতাম একটু গুছাইয়া……। চেহারায় একটা নিরীহ গোবেচারা (আইজকাইল এডিরে কয় মফিজ) ছাপ আছিলআবার পরিক্ষায় ফলাফলও সবসময় সন্তোষজনক আছিল, এল্লেইগা অনেক সময় আমার লগের বান্দর গুলা ছেঁচা খাইলেও আমি বাইচ্চা যাইতাম। আমার বান্দ্রামীর পার্টনাররা এক সময় টের পাইয়া গেল যে, স্কুলের স্যারেরা, আমাগো গার্জিয়ানেরা আমার কথা সহজে বিশ্বাস কইরা ফালায়। এরপর থিকা বান্দর মহলে আমার কদর বাইরা গেল। যে কেউ কোন আকাম কইরা ফাইসা গেলে আমারে লইয়া যাইত হেড স্যারের কাছে অথবা গারজিয়ানের কাছে। সাক্ষী দেওয়ার লইগা, না হইলে ওর পক্ষে সাফাই গাওয়ার লইগা……।

যাই হউক আনিসুল হকের চেহারা সুরত আচার আচরনও মাশাল্লাহ…………!!! আমার চেয়ে হাজারগুন ভালা……………