ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ এখন শুধু একটা নাম নয় একটি সচেতনতা,একটি জ্ঞানবৃক্ষ, সমাজের সবচেয়ে সচেতন অংশের অভিভাবক ও বটে। তার সীমিত সাধ্যের মধ্যে তিনি যে কাজগুলো করেছেন, জনসচেতনতা সৃষ্টিতে আপনারা সেই কাজগুলো স্বাধীনতার ৪০ বছরের সবগুলো সরকার মিলেও কি করতে পেরেছেন?

হে রাজনীতিবিদগণ, আপনাদের নোংরা ভাষা, আপনাদের নোংরা কার্যাবলী, আপনাদের নোংরা রাজনীতির বলি হয়ে প্রতিনিয়ত সমাজের এক উল্লেখযোগ্য অংশ চোর, বাটপার, মাস্তান, ধর্ষক, খুনী, চাদাবাজে পরিণত হচ্ছে তার বিপরীতে আবু সাঈদ স্যারের মত কিছু মানুষের কল্যাণে কিছু মুক্ত মনের মানুষ,শিক্ষিত মানুষ জন্ম না নিলে পুরো বাংলাদেশটাই তো চোর জাতি হিসেবে পরিচিত হতো।

রাজনীতিবিদগণ, একটু নজর দিবেন কি এক নিরক্ষর, অজ্ঞ রিকশাওয়ালার দিকে সেও তো আপনাদেরকে চোর বলে, টেক্সিচালক, কুলি মজুর, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, বিদ্যালয়ের ছাত্র যে সবেমাত্র বুঝতে শিখেছে সেওতো আপনাদেরকে বাটপার বলে, আমার বাড়িতে আসা ভিক্ষুক যে দুইটা পয়সা ভিক্ষা নেয়ার জন্য বারবার আমার আংগিনায় ফিরে আসে সেওতো আপনাদেরকে চোর বলে। তাহলে কি এখন সমগ্র জাতির কি আপনাদের কাছে গিয়ে লেজ ধরে ক্ষেমা চাইতে হবে আশরাফ চোরা আমাদের মাফ করে দেন, সেলিম চোরা আমাদের ক্ষেমা দেন আপনাদেরকে আমরা চোর বলেছি।

দেশের কোন অংশ আপনাদেরকে চোর বলে না তা আমরা ভালো করেই জানি। এক চোর কি কখনো আরেক চোরকে চোর বলে?

প্রিয় সরকারী দল, আপনাদের কি মনে আছে কিছুদিন আগেই হাইকোর্টের এক বিচারপতি আপনার বিরোধীদের ঢালাওভাবে চোর সম্বোধন করেছিলেন। আমরাও জানি জনাব চৌদরীর উক্ত উক্তি সঠিক কিন্তু উনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই কিছু একটা যোগ করেন নি। জনাব আবু সায়ীদ সাহেব তো উনার মত হালূয়া রূটি’র ভাগ পান না যে আপনাদের মান রেখে কথা বলতে হবে। উনি উক্ত বাক্য টিকে সঠিকভাবে সমাপ্ত করেছেন এবং একজন সচেতন মানুষের দায়িত্ব পালন করেছেন।

রাজনীতিবিদগণ, আপনারা কি জনগণের কাছে কখনো ক্ষমা চেয়েছেন? বারবার ব্যার্থ হয়েছেন, মিথ্যা আশ্বাস দিয়েছেন, আপনাদের ঐ দুর্গন্ধময় মুখ থেকে শুধু নোংরা মিথ্যা প্রতিশ্রুতি বের হয়েছে, আপনাদের উন্নয়ন কাজ পেটপুজায় সীমাবদ্ধ থেকেছে, দোর্দান্ড প্রতাপে মানুষ ভীত হয়েছে, দুর্নীতির প্রতিযোগীতায় একে অপরকে টেক্কা দেয়ার প্রতিযোগীতা হয়েছে আর কি হয়েছে জানেন, দরিদ্র আরো দরিদ্র হয়েছে হতদরিদ্র হয়েছে, নিম্নমধ্যবিত্ত দরিদ্র হয়েছে, আর আপনাদের চামচা হালূয়াভোগীরা জয় বাংলার দাপটে এলাকা কিনে নিয়েছে।

সুরঞ্জিত সাহেবের মত একজন প্রমাণিত চোরের বিরুদ্ধে যদি সরকার কোন ব্যাবস্থা না নেয় বরং তাকে আরো আপন করে কাছে টেনে নেয়, তখন কি আমরা ধরে নেব না তাকে আরো ভালোমত চুরির ট্রেনিং দেয়ার জন্য কাছে টানা হয়েছে। স্পষ্ট করে বলতে চাই আপনারা চোর, আপনারা দুর্নীতিবাজ, আপনারা নির্লজ্জ, আপনারা বেহায়া বলেই আরেকজন প্রমাণিত চোরকে আশ্রয় দিয়েছেন, কাছে টেনে নিয়েছেন।

এই চোরমন্ডলী যখন একজন গুণী মানূষকে তাদেরকে চোর বলার কারণে ক্ষমা চাইতে বলেন তখন জাতির একজন হিসেবে আমারো কষ্ট হয়, আমারো লজ্জা লাগে। আপনাদের লাগে না?