ক্যাটেগরিঃ জনজীবন

 

Facebook চালাতে যেয়ে একটা খবরের উপর চোখ আটকিয়ে গেল।

জুয়েল ফারাবি  অভি নামের বাইশ বছরের এক তরুণের আত্নহত্যা।

জুয়েল ফারাবি অভি মনে হয় তার facebook একাউন্টের নাম ছিল,আসল নাম মোমিনুল হক ভূঞা।

ফেনীর একটি বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আইসিএসটিতে অর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ার বিভাগের ৬ষ্ঠ পর্বের ছাত্র ছিল মোমিনুল।জুয়েল, ফারাবি অভি নামে চালানো facebook একাউন্টে তরুণ লিখে যায়- sole jacci aj…..akdom network er baire…….Tk toi amare baste dili na.

বাঙলা করলে দাড়ায়- চলে যাচ্ছি আজ,একদম নেটওয়ার্কের বাইরে,টাকা তুই আমারে বাঁচতে দিলি না।ভয়ানক মর্মান্তিক একটা লেখা,লেখাটি পোস্ট হওয়ার পরপরই তার ফ্রেন্ড লিস্টে থাকা বিভিন্নজন তাকে আত্নহত্যা করতে বারণ করে,ইশতিয়াক রেমিন নামের একজন লিখেছিল-বলনা,,,আমায় ছেড়ে কোথায় যাবি,,,,?  বলনা,,,,আমায় ছেড়ে কেমনে রবি।অনেকে আবার লিখেছিলে-এটা মহাপাগলামী,অনেকে আবার- তোকে মিস করবো অনেক।জুয়েলের facebook ওয়ালও ভরে উঠেছে বিভিন্ন জনের কমেন্টে।এই তরুণ ই এ মাসের ১৫ তারিখ তার ফেইছবুকে লিখেছিল -মরিতে চাহিনা এই সুন্দর ভুবনে।

আজ আর মোমিনুল  নাই।আরেকটি জীবন ঝরে গেল।আরেকটি ফুলের মুকুল বিনষ্ট হলো।এ দায় আসলে কার? আত্নহত্যাই কি সকল সমস্যার সমাধান? মনে হয় না।আর্থিক টানাপোড়নে ছিল মোমিনুল facebook এ যে ছিল জুয়েল।সমাজের পচন কি দায়ী নয় জুয়েলকে আত্নহত্যার দিকে নিয়ে যেতে? মনে হয় অনেকাংশেই। পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষই আজ ক্লান্ত,সমস্যায় জর্জরিত,জীবন যুদ্ধে ক্লান্ত মানুষ আজ।তাই বলে মৃত্যুই সমাধান হিসেবে বেছে নেওয়াটা কি আসলেই কোন সমাধান? সমাজ আজ পুঁজিবাদের দাস,মানুষ আজ নিজেকে নিয়ে ব্যাস্ত,পুঁজিবাদের পূজারী মানুষ তার আশে-পাশের মানুষগুলোর কথা ভাবা ভুলে গেছে।পুঁজিবাদ তাই চায়,আজকে মানুষ তোমার হাতে স্যামসাং তো কালকে আইফোন,থাকো নিজের নিজেত্বে ডুবে।

slide