ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

সমগ্র জাতির হতবিহ্বল ও নিন্দিত ‘লিমন’ প্রসঙ্গে,কয়েকদিন আগে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে,মাননীয় স্বরাস্ট্র মন্ত্রীর মন্তব্য ছিলো “ব্যাপারটি তদন্তাধীন এবং বিচারাধীন-এ ব্যপারে কোন মন্তব্য করা ঠিক হবেনা”।
কিন্ত একই মন্ত্রী,লিমন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা জেঃ তারেক সিদ্দিকীর মন্তব্য নিয়ে,সাংবাদিকদের প্রশ্নে বললেন একেবারে ১৮০ ডিগ্রী উলটো কথা।মন্ত্রী বললেন “যে কেউ এই মামলা নিয়ে বক্তব্য দিতে পারেন,মন্তব্য করতে পারেন।এতে তদন্ত কাজ বাধাগ্রস্ত হবেনা”।

দেশের আইনশৃংখলা পরিস্থিতি,দলীয় ক্রিমিনাল এবং আইনশৃংখলা রক্ষাকারীবাহিনীর অংশবিশেষের অপকর্ম ও আইনবহির্ভূত কর্মকান্ড প্রসঙ্গে “ আমার কর্মী-আমার পুলিশ-আমার র‌্যাব” ইত্যাদি বলে,মতান্তরে দেশের ইতিহাসের দুর্বলতম এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর,সাফাই মূলক,দুর্বলচিত্ত সম্পন্ন ও অপরিণামদর্শী অবস্থান,এই সরকার এবং সরকারি এই দলের কি পরিমান ক্ষতির কারন হয়ে দাঁড়াচ্ছে,তা হাড়ে হাড়ে টের পাওয়া যাবে ভবিষ্যতে।
আর লিমন প্রসঙ্গে সমগ্র জাতির সেন্টিমেন্টের বিরুদ্ধে অবস্থানের অপরিণামদর্শিতার কথা তো আর বলার অপেক্ষাই রাখে না।

শুধু তাই নয়,সংসদ সদস্য হিসাবেও, মাননীয় এই মন্ত্রী তার এলাকায় ও সাংঘাতিকভাবে অসফল ও সমালোচিত।তার এলাকার দক্ষিনখান-উত্তরখান-আশকোনা’র মানুষ রাস্তাঘাটের জরা-জীর্ণদশায় ও চরম দুর্দশায় জর্জরিত এবং ক্ষুব্ধ।তাদের চিরকালীন এই দুর্দশার লাঘব হওয়ার এক বুক আশা নিয়েই তারা এই মন্ত্রী সাহারা খাতুনের বাক্স ভোটে ভরে দিয়াছিলেন।তাই তারা জ্বলে পুড়ে দগ্ধ হচ্ছেন ক্ষোভের আগুনে,যার চরম জবাব তারা দিবে সামনের নির্বাচনে।