ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

মুক্তিযোদ্ধা সন্তান এবং নাতি-নাত্নীদের জন্য চাকুরী কোটা এবং রাষ্ট্রীয় নানান বিশেষ সুযোগ সুবিধা এবং এতোকাল পর মুক্তিযোদ্ধা চাকরিজীবীদের সিনিয়রিটি প্রদান-এগুলির নানান ধরনের অপব্যবহার হবে,নানান ধরনের অন্যায়-জালিয়াতির জন্ম হবে।ইতিমধ্যেই হয়েছেও। প্রভাবশালীরাই এর বেশির ভাগ সুফল তাদের ঘরে নিয়ে নিবে।

এগুলির সঠিক ব্যাবহার হলেও,এর সিংহ ভাগ সুফল যাবে শহুরে উপর মহল এবং প্রভাবশালীদের ঘরেই।বঞ্চিত হবে লুঙ্গি পরা।ইতিমধ্যেই হারিয়ে যাওয়া মুক্তিযোদ্ধার দল। এতে করে মারাত্মক যে ব্যাপারটি বিবেচনার বিষয় তা হলো- এ কারনে সীমিত সম্পদের বিপরীতে অসীম চাহিদার এই দেশে,মুক্তিযোদ্ধা বহির্ভূত সমাজের মেজর অংশে এর বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হবে।

সুতরাং সারা দেশ জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা,অসহায়-অনাহার ও রোগ-শোকে জর্জরিত সকল মুক্তিযোদ্ধাদের এবং তাদের পরিবারদের খুঁজে বের করে,তাদের উন্নত জীবন যাপনের সকল দায় দায়িত্বের ব্যবস্থা রাষ্ট্রীয় ভাবে নিশ্চিত করাই সবচেয়ে বেশি সমীচীন।তেলা মাথায় তেল তো আছেই এর বদলে,তেলহীনদের মাথায় তেল দেয়ার ব্যবস্থা করাই সবার আগে বাঞ্ছনীয় ।মনে রাখতে হবে আমাদের সমস্যা অনেক,কিন্ত সম্পদ সীমিত।