ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

বিএনপি ভাংতে সরকারি দল আওয়ামী লীগের তৎপরতা প্রসঙ্গে জানতে, চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ওবায়দুল কাদের প্রথম আলোকে বলেন, “রাজনীতি একটা খেলা। এখানে ভাঙাগড়ার নানা খেলা চলে।’ তিনি দাবি করেন, বিএনপি বা অন্য কোনো দলকে ভাঙার সঙ্গে আওয়ামী লীগ জড়িত নয়। রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ বন্ধুর সংখ্যা বাড়াতে চায়, শত্রু কমাতে চায়”(সূত্র –প্রথম আলো ১৪-৯-১১)।খেলা বটে জনাব ওবায়দুল কাদের,তবে রাজনীতি এই খেলা বড় ভয়ানক খেলা,বড় নোংরা খেলা।যার ফলাফল কোনদিনই ভালো কিছু হয়নাই।ক্ষমতার অপব্যাবহারে রাজনীতির এই নোংরা এবং হীন খেলা সেনাপতি শাসক জিয়া খেলেছেন,সেনাপতি শাসক এরশাদ খেলেছেন।সর্বশেষ ১৯৯৬ এর পর ক্ষমতাসীন শেখ হাসিনার সরকারও খেলেছেন।১৯৯৬ এর পর শেখ হাসিনার সরকার এই হীন খেলায় মত্ত হয়ে, ডাঃ আলাউদ্দিন এবং হাসিবুর রহমান স্বপন নামে দুই অখ্যাত সাংসদকে,বিএনপি থেকে বাগিয়ে এনে মন্ত্রী বানিয়ে দেন।এতে করে বিএনপির কোনই ক্ষতি হয়নাই।ক্ষতি হয়েছে, স্বার্থে প্রলুব্দ এই দুই সাংসদের এবং রাজনীতির নোংরা খেলায় মত্ত অপরিনামদর্শি আওয়ামীলীগের।পরবর্তিতে কেবল বিতির্কিত এই দুই সাংসদই ডুবেন নাই,ডুবিয়েছেন আওয়ামীলীগকেও। ব্যাপারটা কিন্ত ভুলে যাওয়া ঠিক হবেনা জনাব ওবায়দুল কাদের।

আর আওয়ামীলীগ “বন্ধুর সংখ্যা বাড়াতে চায়, শত্রু কমাতে চায়”-(?)।হাসালেন জনাব ওবায়দুল কাদের!মনে হয় তা কিছুটা সত্য,আওয়ামীলীগ যখন বিরোধী দলে থাকে তখন।ক্ষমতায় থাকা কালে-আওয়ামীলীগের শীর্ষনেত্রীত্ব মিত্র চিনতে,সঠিক বন্ধু চিনতে বরাবরই ভুল করে,বন্ধুকে অবজ্ঞা-উপেক্ষা করে-জোর করে শত্রুর দলে ঠেলে দেয়,এমনকি নিজ দলের সঠিক মানূষগুলিকেও চিনতে পারেনা,মূল্যায়নে ভূল করে-ইহাই আওয়ামীলীগের ইতিহাস।যার মাশুল পরে গুনতে হয় পুরো দলকে এবং আওয়ামীলীগের অগনিত হিতাকাংখীদেরকে। এই যেমন এবার।কি সরকারে,কি দলে-যে মুখ গুলিকে সদাসর্বদা শেখ হাসিনার চার পাশ ঘিরে থাকতে দেখা যায়,এর ২/৪ জনকে বাদ দিলে,বাদ বাকিদেরকে, কে কবে দেখেছে দলের জাতীয় পর্যায়ের কোন কর্মকান্ডে?এরা কেউ কি ছিলেন মর্মস্পর্শি ২১ আগষ্টে শেখ হাসিনার পাশে?এরা কেউ কি ছিলেন ২০০১-২০০৭ আমলে রাজপথে,সংগ্রাম-আন্দোলনে,মিটিং-মিছিলে?-যখন রাজপথ গরু-ছাগলের মতো পিটুনিতে বুকের পাঁজর-হাত-পা ভেঙ্গে রক্তাক্ত হতে হয়েছে নিত্য-নিয়মিত?না তারা ছিলেন না।যারা ছিলেন,যারা আওয়ামীলীগের ইতিহাস,যারা আওয়ামীলীগের সামনের সারির সবসময়ের সংগ্রামী মূখ-সেসব কিংবদন্তিতুল্য নিবেদিত প্রাণরা,কিছু পাওয়ার বেলায় আজ অবহেলিত,অবমানিত এবং অপমানিত।