ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

নরসিংদীর মেয়র লোকমান হত্যার সাথে জড়িত থাকার কাল্পনিক অভিযোগে,বিএনপি নেতা খায়রুল কবীর খোকনকে গ্রেফতার করা ছিলো সরকারের একটি ঘৃণ্য এবং অপরিণামদর্শী প্রতিহিংসাপরায়ণতা। এরপর তাকে (খোকনকে) রিমান্ডে নেয়ার অপচেষ্টা এবং তাতে ব্যর্থ হয়ে, রেলগাড়িতে আগুন দেয়ার অভিযোগ দাঁড় করিয়ে তাকে আটকে রেখে হয়রানি করার পাঁয়তারা আরো ঘৃণ্য ও নিন্দনীয় একটি ব্যাপার। এতে করে শেষ বিচারে লাভ হয়েছে জনাব খায়রুল কবীর খোকনের। আর সরকারের ক্ষতি কতটুকু হয়েছে তা টের পাওয়া যাবে সময়ে। অসৎ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কাল্পনিক অভিযোগে গ্রেফতার করে হয়রানির, হীন রাজনৈতিক প্রতিহিংসার মামলা থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে বের হয়ে আসার জন্য জনাব খায়রুল কবীর খোকনকে অভিনন্দন।

ইতিপূর্বে অতি হালকা মানের অপরিণামদর্শিতায় মত্ত হয়ে এই সরকার, মোটামোটি এক বড় নেতা বানিয়ে দিয়েছে, মাপের বাইরে কথা বলা স্বঘোষিত এক সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে। সাম্প্রতিক সময়ে একই ধরনের ঘৃ্ন্য খেলায় মত্ত হয়েছে সাপ্তাহিক শীর্ষকাগজ সম্পাদককে নিয়ে। বিগত আমলেও একই ধরনের হীন রাজনৈতিক প্রতিহিংসাপরায়ণ অপকর্ম অনেক করা হয়েছে। যার চড়ামূল্য দিতে হয়েছে সংশ্লিষ্টদেরকে। তা থেকে কোন শিক্ষা না নিয়ে একই পথে পা রাখার কারনে,আরো ভয়াবহ কঠিন মূল্য দিতে হবে বর্তমান এই সরকার পরিচালনাকারিদেরকেও। সরকার পরিবেষ্টিত অযোগ্য-অনভিজ্ঞ-অথর্ব পরামর্শদাতারা, এই সরকারকেও সেদিকেই নিয়ে যাচ্ছে দ্রুতগতিতে।বলা যায় ইতিমধ্যেই নিয়ে গিয়েছেও। যেখান থেকে আর ফিরে আসার সম্ভাবনা এবং সময় খুবই ক্ষীণ।