ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

আমরা সবাই ভাড়াটিয়া

করিম সাহেব, আপনাকে কত বার বলেছি রাত ১১ টার পর বাড়ির দরজা বন্ধ। তার পরও আপনি কেন এত রাত করে বাসায় ফিরেন?? আপনি কি জ্ঞান বুদ্ধি বলতে কিছু নাই নাকি?? গত মাসের ইলেক্ট্রিক বিল টাও দেন নি তার আগের মাসের পানির বিল ৩০ টাকা কম দিলেন বেপার টা কি???? বেচারা কারিম সাহেব ক্লান্ত কণ্ঠে বল্লেন এই মাসে সব চুকিয়ে দিব ম্যাডাম। এমন নিহ লজ্জের মত কথা না বলে পারলে টাকটা কাল দিয়ে দেন। অসহায় করিম সাহেব মাথা নিচু কালান্ত কণ্ঠে বল্লেন চেষ্টা করব। ২ টাকার মুরদ নাই ৫ টাকার বাসা ভারা নিয়া থাকবে বলতে বলতে ছলে গেলেন ম্যাডাম। কথাটা শুনে রাগে কষ্টে সিরি বেয়ে উপরে উঠছেন আর ভাবছেন সারা দিন চাকুরি আর রাতে টিউশন করেও সংসার চালাতে পারি না তার উপর কাল আবার হরতাল খোদা নিয়া যাও আর বাঁচতে চাই না………..।

এমন হাজারও করিম সাহেবর কথা সবার জানা আছে আমাদের। নাই শুধু আমাদের করিম সাহেবদের দুঃখ কষ্ট বোঝার ক্ষমতা। তাই যদি থাকতো তাহলে হরতাল ডেকে করিম সাহেবদের দুঃখটা আরও বাড়াতাম না। কি ভাগ্য রে ভাই আমাদের আমরা স্বাধীন দেশের অসাধারণ নাগরিক। যেখানে মানুষের দু’বেলা আহার জোটে না, ,মানুষের বস্ত্র মিলেনা, মিলেনা মানুষের মৌলিক অধিকার সেখানে আমরা কিভাবে স্বাধীন? ধুর কি লিখছি আমরা কেন স্বাধীন হতে যাব?? স্বাধীন তো হবেন আমাদের রাজনৈতিক আর রাজনৈতিক আমলা সাহেবরা।

আহ কতই না সুখ দামী গারি, পাশে সুদর্শন নারী, বিলাশ বহুল বাড়ি আহ কতই না সুখ। বিধাতার কাছে আরজি রইলো “অহে বিধাত আবার আসিতে চাই ফিরে এই বাঙ্গালর তিরে, কোন এক রাজনইতিক বিদের বেশে”