ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

আমরা কি পারিনা নিজেকে বদলাতে ?
আমরা কি পারিনা নিজেদের কিছুটা বদলে দিতে?
হ্যা, আমরা পারি কিন্তু আমরা চাইনা আমাদের জাতি গত স্বভাব বদলাতে।কারন আমরা বীরের জাতি কিনা।বীররা যেমন যুদ্ধের ময়দান ছেড়ে পালায়না,আমরা ও দূর্নীতির বিশাল মঞ্চ ছেড়ে পালাতে চাইনা।দূর্নীতি আমদের বাবা,মা যা আমাদের রক্তের প্রতিটা কনায় মিশে গেছে।তা না হলে আমরা এই দূর্নীতির মহান মহান কাজ গুলু দেখে বিচলিত হয়না কেন ? আমরা কেন আঁৎকে উঠিনা ? নাকি আমদের অবাক হবার ক্ষমতা নষ্ট হয়ে গেছে।নষ্ট হয়ে যাবার ই কথা কারন আমরা যে দূর্নীতি লালন পালন করে বুকে আগলে রাখছি প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম।
সড়ক পথে দূর্নীতির কারনে আমাদের হারাতে হচ্ছে আপনজন।

রেল পথে দূর্নীতির জন্য আমাদের সরকারকে গুনতে হচ্ছে ৭৫০ কোটি টাকা।১৯৭৫ সালের পর রেল আর লাভের মুখ দেখেনি।কিন্তু প্রতিদিন রেলের উপর চাপ বাড়ছে।কেও দেখার নেই।
বিমান লাভের মুখ দেখেনা,কারন অনেক।নতুন বিমান আনার পরই বিমান নষ্ট হয়ে যায়।হায়রে সেলুকাস।

আমাদের নিরাপত্যা দানকারী প্রতিষ্টান পুলিশ বিভাগ তো কিছুদিন আগে আমাদের জন্য সম্মান বয়ে আনলেন দূর্নীতির কারনে।
সরকারি হাসপাতাল গুলি তে চরম দূর্র্নীতির চিএ ফোটে উঠে যখন দেখি হাসপাতালের ফ্রি ঔষধ গুলি রোগিদের দেয়া হয়না।সে গুলি পাওয়া যায় হাসপাতালের সামনের ফার্মেসি গুলিতে।আর হাসপাতালের সিট পেতে যে কস্ট করতে হয় তা কেবল ভুক্তভোগী যানেন।

সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা গ্রাহক দের মনে করে তাদের বাসার চাকর।আরা তারা তাদের বাবার প্রতিষ্ঠানে চাকির করছে মনে করে।
ভুমি অফিস হল দূর্নীতির এক মহান ক্ষেএ,যেই খানে পিওন থেকে শুরু করে বড় সাহেব সবাই টাকা ছারা কথা বলতে রাজি নই।

বাংলাদেশ সরকারের বিটিসিএল/ টেলিটক কত টাকা লাভ করে প্রতি বছর ? যে যায়গায় বিদেশি গ্রামীণ, বাংলালিঙ্ক, রবি, বাংলা লিয়ন, কোম্পানী গুলু হাজার হাজার টাকা লাভ নিয়ে নিচ্ছে।এই খানে ও দূর্নীতি।
বিএসসি লাভের মুখ দেখেনা এই দূর্নীতির কারনেই।

রুপসী বাংলা, সোনারগাঁও কেন প্রতি বছর ক্ষতি করে।যেই খানে লাভের মুখ দেখে ক্লান্ত ওয়েস্টিন,রেডিসন। দূর্নীতির কারনে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে একের পর এক মিল।আদমজি, কর্ণফুলী,প্রজাপতি আর ও কত কি।
শেয়ার বাজারের দূর্নীতি তো হালের সকল দূর্নীতি কে পিছনে ঠেলে ১ নম্বরে আছে। বিদ্যুৎ আর গ্যাস এর দূর্নীতি আর কি বলব,যার প্রমান ১ঘন্টা পর পর বিদুৎ এর আসা যাওয়া।
আমাদের মহান দূর্নীতি বাজদের দূর্নীতির কথা দিয়ে হাজার হাজার মহাকাব্য লিখা যাবে অনায়াসে।

তাই একটাই প্রশ্ন আর কত সহ্য করব আমরা? আর কত? আর কত? আমরা কি পারবনা মাথা তুলে দাড়াতে,
পারিনা কি আমরা বিশ্ব কে নতুন ভাবে চেনাতে আমাদের সোনার দেশ কে,
আমাদের সোনার বাংলাদেশ কে?

বাংলাদেশ আমি তোমায় ভালোবাসি,তুমি আমার প্রানের বাংলা।