ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

বাংলাদেশের বিচার বিভাগ যে কি পরিমান স্বাধীন তা এবার হারে হারে টের পাবেন আমাদের মাননীয় বিচারপতিরা । এবার তারা বুঝতে পারবেন তাদের ক্ষমতার দৌড় কোন পর্যন্ত। একজন বিচারতি কতৃক সংসদের স্পিকারকে তিরষ্কারকে কেন্দ্র করে গতকাল সংসদে বিচারক এবং কোর্ট সম্পর্কে যে প্রতিবাদ মুখর হয়েছিল আমাদের মাননীয় সংসদ সদস্যরা তার শত ভাগের একভাগ যদি সাধারন মানুষের কষ্টের কথা ভেবে তারা প্রতিবাদ মুখড় হতেন তাহলে আমাদের সুখের কোন শেষ থাকত না । আমাদের বড়ই সুভাগ্য যে আমাদের কষ্টের কথা সংসদে বলার সময় নেই । সংসদে শুধু অন্যের সমালোচনা , গীবদ আর নিজেদের আখের কি ভাবে গোছান যায় সেই আলোচনা। দেশের প্রধান তিনটি প্রতিষ্ঠান হল সংসদ , নির্বাহী বিভাগ এবং বিচার বিভাগ । তিনটি প্রতিষ্ঠানকেই যার যা অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। সংসদ বা মন্ত্রী এমপির কথায় বিচার বিভাগ চলবে না আবার বিচারকগনদের নিজেদের আইনের উর্দ্ধে ভাবলে চলবে না । সামন্য একটা ঘটনা যা খুব সহজেই সমাধান করা যেত তা নিয়ে হৈ চৈ শুরু হয়েছে । যেহেতু একটা বাহাস শুরু হয়েছে তা খুব সহজে শেষ হবে না কারন আমাদের দেশে কোন কিছুই সহজে শেষ হয় না । এ্যাডভোকেট আনিসুল হক বিচারকদের বললেন মাই লর্ড ব্যাপারটা সহজ ভাবে গ্রহন করে এখানেই শেষ করে দিন , বাস্তবে ঘটনা কিন্তু শেষ হল না ।

বর্তমান সরকার এমনিতেই বিভিন্ন ধরনের জটিলতার মধ্যে আছে । তার উপর বিচার বিভাগের সাথে এই ঘটনা সরকারকে নতুন করে বেকায়দায় ফেলে দিতে পারে। সংসদে অনেক দুর্নীতিবাজরা এই সুযোগে বিচার বিভাগ কে কলংকিত করতে চেষ্টা করবে এতে হিতে বিপরীত হবে । বিচারপতিরা যদি সত্যিকার অর্থে স্বাধীন ভাবে কাজ শুরু করে তাহলে বাংলাদেশের অনেক তথাকথিত সৎ মানুষদের মুখোশ জনগনের সামনে ফুটে উঠতে বেশী সময় লাগবে না । তাই সাধু সাবধান , এই বাংলাদেশে কেউ ধোয়া তুলসী পাতা নয় কেউ পুত পবিত্র নয় তাই যদি সত্যিকার অর্থে বিচারপতিরা সৎ সাহসের সাথে নিজেদের দায়িত্ব পালন করা শুরু করেন তখন কিন্তু মুখ দেখানোই কষ্ট হয়ে যাবে তাই আবার বলছি সাধু সাবধান , কেউ কারো সীমা লংঘন করবেন না ।

দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে খুবই চিন্তাযুক্ত আছি, প্রতিনিয়ত সাংবাদিক নির্যাতন, পুলিশের বাড়াবড়ি, সাধারন মানুষের নিরাপত্তা বলতে কিছুই নেই আর এখন বিচার বিভাগ এবং সংসদের মধ্যে যে বির্তক তাতে সত্যিকার অর্থে যে দেশ কোথায় যাচ্ছে তা বলা মুশকিল। সবাইকে ভাবতে হবে আসলে বাংলাদেশ নিয়ে সত্যিকারের কোন ষড়যন্ত্র হচ্ছে কিনা । বিশ্ব পরিস্থিতি , বাংলাদেশের ভূরাজনীতি , বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সম্পদ সব কিছুই এখন আমাদের স্বাধীনতার জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। হয়ত অনেক দূরের কোন পরিকল্পনা নিয়ে কোন বৃহৎ শক্তি বাংলাদেশকে নিয়ে ছক আঁকছে যার প্রাথমিক কাজ হয়ত শুরু হয়েছে তাই দেশপ্রেমিক জনগনকে সাবধান হতে হবে ।