ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

কাল রাতে একটু কাজ ছিল তাই গিয়েছিলাম সানমার ওসান সিটিতে… আপনারা যারা চট্টগ্রামে থাকেন তারা সবাই চেনেন মার্কেটটা… ঠিক তার উল্টো পাশে কাল রাতে একটা অপমৃত্যু দেখলাম… আসলে বুঝতে পারছিনা কি বলবো অপমৃত্যু নাকি হত্যা ?? তার জন্য কাকে দোষ দেব জানিনা… চট্টগ্রাম সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ঈদের নামাজ হবে আর তাই ডেকোরেশনের গরিব একজন কর্মী মাইক লাগাতে উঠেছে রাস্তার পার্শ্বেই থাকা অপরিকল্পিত সাইনবোর্ডে।

চট্টগ্রাম শহরে যেন বিল বোর্ডের মেলা বসেছে। এই মেলা তাদের জন্য কাল হল। তারা তিনজন। একজন ওখানেই মারা গেল আরেকজন ঝুলছিল- তার মাথাটা ছিল নিচের দিকে আর অপরজন সাইনবোর্ডের ফাঁকেই আটকা পড়ে ছিল তিনজনই তাদের অল্প ক’টা টাকার জন্য ওখানে উঠেছিল সাইনবোর্ডের ঠিক উপরেই হাই ভলটেজ তার…

যা হবার তাই হল… মানুষ মরল, কিন্তু আমাদের কী ???

আমরা তো বেঁচে আছি, ঐ পরিবারগুলোর দুঃখ আমাদের জানা হলনা, জ্বলে যাওয়া মানুষ দেখতে চাইনি বলে সামনে যায়নি। কষ্ট পাচ্ছিলাম… চোখে পানি এসেছিল। কিন্তু আমার কি করার ছিল জানিনা বা মাথায় আসেনি। খুব দুখের সাথে জানাচ্ছি যাদের কিছু করার কথা তারা নিশ্চুপ।

কাদের দায়িত্ব এইসব তদারক করার

০১। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (মেয়র ও কাউন্সিলরবৃন্দ)

০২। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

০৩। জেলা প্রশাসন

০৪। জেলা পরিষদ

০৫। মন্ত্রি ও এমপি

০৬। বন ও পরিবেশ অধিদপ্তর

০৭। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ

০৮। সামাজিক সংগঠন

০৯। পরিবেশবাদীরা

১০। সংস্কৃতি কর্মী

কিন্তু কেউ কিছু বলছে না! সবাই চুপ… প্রাচ্যের রানি তার যৌবন হারিয়ে ফেলছে কিছু অর্থ লোভী ক্ষমতাবান মানুষের জন্য

সিদ্ধান্ত আমাদের নিতেই হবে আমরা আমাদের শহরটাকে কেমন রাখব ???

আমরা চট্টগ্রামের নাগরিকরা বারবার সপ্ন দেখি সেই আশায় গুড়েবালি পরার জন্য বোধকরি। নাহলে বারবার এমন হবে কেন ??? যেন অদৃষ্টের লিখা। যে লোকটার অপমৃত্যু ঘটলো তার পরিবার যানে তারা কি হারিয়েছে বা যারা শক খেয়ে মরন দশার শিকার তারা জানে কি কষ্ট তারা পাচ্ছে। সে ব্যাথা বোঝার ক্ষমতা আমাদের কারো নেই।। এমন কি যারা ক্ষমতার দাপটে ঐ অবৈধ বিলবোর্ড ব্যাবসা করে।

উপরে সবার নাম উল্লেখ করলাম শুধু একটা কর্তৃপক্ষ বাদ দিয়ে সেটা হল বাংলাদেশ পুলিশ। এই সংস্থার উপর বেশি আশা করি না কখনই।

ক্ষমতাবানদের ক্ষমতার লড়াইয়ে তাদের আশা করিনা কিন্তু আমাদের তথা কথিত সুশীলদের যারা চট্টগ্রামের এই অকাল বৈধব্য দেখছেন, তাদের কাছে আমার একটাই আবেদন চট্টগ্রামের স্বার্থে অন্তত মুখটা খুলুন।

কী দিয়ে যাচ্ছেন আমাদের জন্য ???

আমরা কি বলব আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের কাছে ???

প্রশ্নগুলোর উত্তর চাই- বিবেকের কাছ থেকে।

একজন মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ কি এমন অনিয়ম সমর্থন করতে পারেন ???

আর যারা বিলবোর্ডের ব্যাবসা করে তারা আরামেই ঈদ করবেন পরিবার নিয়ে এই দুর্ঘটনার (হত্যা) খবর তারা পাবেন না…তাদের ঈদ আনন্দ অব্যাহত থাকুক

আমাদের বিবেক জাগ্রত হবে এই আশায়………একজন হতাশাগ্রস্থ আশাবাদি যুবক

মোহাম্মদ উল্লাহ কামাল রতন।