ক্যাটেগরিঃ ব্লগ

ব্রিটিশ উপনিবেশবাদি শাসকগোষ্ঠী আর পাকিস্তানী খানেরা- এই দুই জাতি তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নে শতভাগ সফল। দীর্ঘদিন শাসনের নামে শোষণ করে তারা ভালভাবেই বুঝতে পেরেছিল জাতি বা ধর্মের নামে একটা বিভেদরেখা টেনে দিয়ে আমাদের দেশের মানুষের মাঝে কলহ কোন্দল তৈরি করা খুবই সহজ। সারা দেশে যা হচ্ছে তা যদি তারা বা তাদের কোনও বংশধর টেলিভিশনে দেখে থাকে তাহলে কোনও সন্দেহ নেই, আজ তারা বিয়ারের গ্লাসে ঢেউ তুলে অথবা সারারাত মুজরা নাচ দেখে সেলিব্রেট করবে। জাতীয় পতাকা পোড়ানো হল,শহীদ মিনার ভাঙা হল, জাতীয় মসজিদেও গুলি বর্ষণ হল আর ইসলামী শ্লোগান দিতে দিতে মসজিদের নামাজ পড়ার কারপেট পোড়ানো হল; আর কি চাই? সাদা চামড়া সাহেবরা ‘Divide and conquer’ করে আমাদের চিরতরে পঙ্গু করে দিতে চেয়েছিল। একই পথে হেঁটেছিল খান সাহেবরাও। কিন্তু ইতিহাসের কিছু মহানায়কের কারনে সফল তারা হতে পারেনি। কিন্তু আজ এই সুযোগটা নিচ্ছে প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠী। আজ তারা আরও জঘন্য এক পদ্ধতি অবলম্বন করছে, যেটাকে বলা যেতে পারে ‘Divide and destroy’। এরা ওই পূর্বোক্ত দুই জাতিরই অনুসারী। তাদের প্রভুদের দর্শন ছিল এই-‘ভোগ তো এদের ভালমত করতে পারলাম না, অতএব এদের ধ্বংসই করে দেই; এরা নিজেরা নিজেরাই মারামারি করে মরুক’। ৭১ এবং আজকের হায়েনার দল সেই মনোবাসনাই বাস্তবায়ন করতে চলেছে। আর কিছুদিন পর আমাদের সবার বড়ভাই ওয়াশিংটন বলবে ‘তোমাদের দেশে তো অনেক গণ্ডগোল। তোমরা টেনশন কোর না আমরা আমাদের সেনাবিহিনি পাঠাচ্ছি তোমাদের ওখানে,সব ঠিক করে ফেলব,তোমাদের দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করব।’ এরপর কি হতে পারে সেটার উদাহরণ তো আমাদের হাতের কাছেই আছে। তবে আশা করি আমার শেষ কথাগুলো যেন ভুল হয়। দেখা যাক সামনে কি হয়।