ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা, ব্লগ সংকলন: সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ড

 

এই কথাগুলোকে এইভাবে লিখবো তা কখনো ভাবিনি। লিখতে গিয়ে হাতটা অনেক শক্ত করে ধরে টাইপ করেছি। কাক কাকের মাংস খায় না। কিন্তু মানুষ মানুষের মাংস বেশ খেতে শুরু করেছে।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের রহস্যভেদ করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীদের বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। তবে হত্যাকারীদের বের করতে কষ্ট হয়নি কিছু ব্যক্তিদের। যাদেরকে দেখেই বলা যায় এরা হত্যাকারী। সাগর-রুনি হত্যাকারীরা আর কেউ নয় তারই গোত্রীয় সাংবাদিক। সাংবাদিকরা সাগর-রুনিকে বারবার জখম করে খুন করেছে। কথাটি উদ্ভুত লাগলে কথাটি ফেলে দেয়ার মতো নয়। সাংবাদিকদের গোড়া যদি শক্ত থাকতো তাহলে আমাকে এই ধরনের কথা লিখতে হত না। মাহফুজুর রহমান সোমবার সাংবাদিকদের মহাসমাবেশকে রুখতে আদালতে মামলা করেছিলেন। সেই মামলায় আদালত ব্যক্তি স্বাধীনতা হরণ করার যুক্তি দেখিয়ে খারিজ করে দেয়। এই হলো অদ্যকার ঘটনা। কিন্তু সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের যে ৬ মাস অতিক্রম করতে চলেছে কিন্তু সাংবাদিকদের নেতৃত্বের কারণে হত্যাকারীদের ধরতে পারিনি পুলিশ। এই সময়ে এটিএন বাংলায় যেসব টক শো হয় সেগুলো কারা করে? কারা মাহফুজকে আলোর পথ দেখায়? কারা গভীর রাতে এটিএন বাংলা কিংবা মুন্নী সাহার এটিএন নিউজে কি বড় বড় বক বক করে কথা বলে?? কারা বলে এটি নিছক মাহফুজের উপর দোষ চাপানো।

প্রতিরাতে এইসব অনুষ্ঠানে বাঘা বাঘা সাংবাদিকদের নামে মাত্র ২/৩ হাজার টাকা দিয়ে বমি করে নেয়। এইসব সাংবাদিকরাই চাচ্ছে সাগর-রুনি হত্যাকারী। তারা কিভাবে বিষয়টিকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে তা এটিএন মিডিয়ার ওইসব ছাপায় গায়ানো অনুষ্ঠানগুলো দেখলেই টের পাবেন। আমি বলছি না এই কয়েকজন সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্যে যারা নিজেদের বিভিন্ন সংগঠনের নেতা বলে পরিচয় দেয় তারা সমগোত্রীয় ভাইয়ের দুর্দশায় এগিয়ে আসে না।

শেম শেম………..অপবাদ অনেক হয়েছে। জানি সাগর-রুনি হত্যাকারীদের বিচার হবে না। তবুও অপেক্ষা ঝালিয়ে নেয়া মনে হয় সমীচীন হবে না। আমরা ইচ্ছে করলে মাহফুজকে খুনি বলতে পারি না। তার বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা যে তথ্য পেয়েছেন তাতে তাকে গ্রেপ্তার করে মূল ঘটনা বের করা যেত অনায়াশে। কিন্তু না তা তো করতে দেবেন না আমাদের বরণীয় সাংবাদিক সমাজ। গৌদম, মানিক, ফরিদ কিংবা জামাল কেউ তো বিচার পায়নি। প্লিজ অন্ধকার আর টাকার মোহে না থেকে অত্যন্ত একটি স্পষ্ট হত্যাকারীকে গ্রেপ্তার ও উপযুক্ত বিচার করাতে সহায়তা করুন। আমি কিংবা আপনিও তো এই ধরনের সমস্যায় পড়তে পারেন। তখনই আপনার হত্যাকারীকে গ্রেপ্তারের জন্য কারা এগিয়ে আসবে? আজকে যাকে আপনি সাংবাদিক হিসেবে অন্যায় ভাবে বয়ান দিয়ে বেড়াচ্ছেন একদিন তারায় যে আপনার জন্য কাল হয়ে দাঁড়াবে না তোর কোন নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবে না। তাই সময় থাকতে কিছু একটা করে দেশে দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন।