ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

ভারতের কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী শারদপাওয়ারকে দিল্লীর এন ডি এস সি কেন্দ্রের এক অনুষ্টান শেষে চড় মেরে বসেন হরভিন্দর সিং নামের দিল্লীর এক টেম্পুচালক। হরভিন্দর সিং স্বীকার করেন যে জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধিতে ক্ষুব্ধ হয়েই এ কাজটি করেছেন আর এজন্য তিনি মোটেও অনুতপ্ত নন। উল্লেখ্য সাম্প্রতিক সময়ে ভারতে জিনিসপত্রের দাম খুবই উর্ধমুখী।

বিভিন্ন ইস্যুর উপর ভিত্তি করে মানুষের সহ্যসীমা যখন ছাড়িয়ে যায়,তখন তাদের মধ্যে জমে উটা ক্ষোভের বিস্ফোরন ঘটে এরকম কোন ঝুকিপূন’, সাহসী কান্ডের মধ্য দিয়ে,যেমনটি ঘটেছিল মাকি’ন প্রেসিডেন্ট বুশের ক্ষেত্রে।

আমি মনে করি এসব ঘটনা আমাদের দেশের মন্ত্রীদের জন্য সতর্কবার্তা বহন করে। যতই মন্ত্রী এমপিরা গাড়িতে চড়ে নিজেদেরকে সাধারন মানুষের ধরা ছোয়ার বাইরে মনে করেন না কেন, হয়ত এমন দিন আসবে মানুষ অসহ্য হয়ে আন্দোলনের এমন কোন রাস্তা বেছে নিবে যা তারা কল্পনা ও করতে পারবেন না।

বিশেষ করে আমি আমাদের যোগাযোগ মন্ত্রী আবুল হোসেন আর অথ’ মন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের কথা বলছি।এই দুই আবুল সাহেব রাস্তাঘাট আর শেয়ারবাজারের যে হাল করেছেন আর এখন ও যেসব মন্তব্য করছেন, তাতে সাধারন জনগনের মধ্যে যে ক্ষোভ জমে উঠছে যেকোন দিনই যেকোনভাবে তার বিস্ফোরন ঘটতে পারে।যেমনটি ঘটেছিল বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন এমপি সালাউদ্দীনের বেলায়।সেদিন মানুষ বিদ্যুৎ গ্যাস এর চরম অবস্থার কারনে কিছু তোয়াক্কা না করে তাকে দৌড়ানো দিয়েছিল।

তাই সব মন্ত্রী-এমপিরা সাবধান!