ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

গত ৭ই অক্টোবর সৌদিতে ডাকাতি এবং খুনের দায়ে ৮ বাংলাদেশি নাগরিকের শিরচ্ছেদ করা হয়েছে। সৌদির বিচারকাযে’ শরীয়া আইন অনুসরন করা হয়।শরীয়া আইন অনুসারে হত্যার পরিবতে হত্যাকারীকে ও হত্যা করা হয়,যদি না নিহত ব্যক্তির আত্বীয়-স্বজন তাকে ক্ষমা করে দেয়। আত্বীয়-স্বজনরা ক্ষমা না করলে আর কার ও পক্ষে হত্যাকারীর মৃত্যুদন্ড রহিত করার অধিকার থাকেনা।

অপরাধ প্রমানিত হলে অপরাধের মাত্রা হিসেবে শাস্তির রকম নিধা’রন করা হয়ে থাকে।খুন,ধষ’ন,সশস্র ডাকাতি,মাদকাসক্তি,ধম’ত্যাগ,ব্যভিচারসহ নানা অপরাধের জন্য রয়েছে শিরচ্ছেদ,পাথর নিক্ষেপের মত কঠোর শাস্তির বিধান।শরীয়া অনুসারে বিচারে তিন ধরনের শাস্তির বিধান আছে।সেগুলো হল-হুদুদ,কিসাস এবং তাজির।এগুলো সম্পকে’ নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হল:

হুদুদ:- কেউ ধম’ত্যাগ করলে, ব্যভিচার করলে বা সমকামিতায় লিপ্ত হলে,এসব অপরাধের একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদন্ড।

কিসাস:- কিসাসের ক্ষেত্রে শাস্তি হচ্ছে চোখের বদলে চোখ ইত্যাদি। নিহত ব্যক্তির পরিবার খুনির মৃত্যুদন্ড দাবি করতে পারে অথবা অথে’র বিনিময়ে যেটাকে বলা য় ব্লাডমানি দ্বারা মামলাটির নিষ্পত্তি ঘটাতে পারবে।

তাজির:-মাদক চোরাচালান অথবা অন্য কোন জাতীয় স্বাথ’বিরোধী অপরাধে জড়িত থাকলে মৃত্যুদন্ড হতে পারে।

সৌদির শিরচ্ছেদের একটি পরিসংখ্যান

সাল দেশি বিদেশি মোট
২০১১ ৩৮ ২০ ৫৮(এ পযন্ত)
২০১০ ২১ ৬ ২৭
২০০৯ ৫০ ১৯ ৬৯
২০০৮ ৬২ ৪০ ১০২
২০০৭ ৮২ ৭৬ ১৫৮

এমনেস্টি ইন‌টারন্যাশনাল