ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

সম্প্রতি ইংল্যান্ডের কর্ম ও পেনশন সংক্রান্ত একটি সংস্থা গবেষনা করে বের করেছে যে ৩২ বছর বয়সেই মানুষর যৌবনের পরিসমাপ্তি ঘটে সেটা শারীরিক বা মানসিক উভয় রকমের হতে পারে। । “বার্ধক্য আসে শরীরে, বুড়িয়ে যাওয়ার রোগ পুরাটাই মানসিক” অনেক দিন ধরে প্রচলিত এই তথ্যটিকে তারা ভুল বলে আখ্যায়িত করেছে।ইচ্ছা থাকলে ৪০ বছর পয’ন্ত যৌবন ধরে রাখা যায় যেটা জানতাম আমরা এতদিন ধরে সেটা ও ভুল বলে প্রমানিত হয়েছে। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য যে তথ্য সেটা হচ্ছে বয়স বাড়ার সাথে সাথে মানুষ তার নিজের যৌবন প্রমানে সবচাইতে বেশি সচেষ্ট হয় যা সত্যিই অভিনব। ২৫ বয়সের যুবকেরা মনে করে সে হয়ত ৪৫ বছর বয়স হলে বুড়িয়ে যাবে। আর মধ্যবয়সী মানুষরা মনে করে বৃদ্ধ বয়সের যাত্রা শুরু হবে ৫৯ বছর বয়সে ।