ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ছাত্রী মার্জিয়া জান্নাত সুমির আত্মহত্যার ঘটনায় সুষ্ঠ তদন্ত ও অভিযুক্তদের বিচার দাবি করেছে তার সহপাঠীরা। গতকাল ইতিহাস বিভাগের ৩৫ তম ব্যাচের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মনিরুজ্জামান শিকদার সুমনের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানানো হয়। ঘটনার দুই দিন পর গতকাল প্রশাসনিকভাবে একমাস সময় বেঁধে দিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করায় ক্ষুব্ধ সুমির সহপাঠীরা। তদন্তের দীর্ঘ সময় নেয়া ও বিচারের দাবিতে ভিসির কাছে গেলে সেখান থেকে সাংবাদিকদের তাড়িয়ে দেয়ায় সুষ্ঠ বিচার না পাওয়ার আশংকা তাদের। এজন্য নিয়মানুযায়ী আন্দোলনেও যেতে প্রস্তুত তারা।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের জাহানারা ইমাম হলের ৩২৩/এ কক্ষে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে সুমি। ঘটনার ঠিক পূর্ব মুহূর্তে সুমীকে কান্নাকাটি করতে দেখেন তার হলের বান্ধবীরা। তারা আত্মহত্যার পেছনে প্রেমে ব্যর্থ হওয়াকেই কারণ হিসাবে দেখছেন। হলের বান্ধবীরা জানান, অনার্সে প্রথম হওয়া সুমিকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার প্রলোভন ও বিয়ে করার আশ্বাস দেখিয়ে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মোঃ মনিরুজ্জামান শিকদার সুমন সুমীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। ইতিমধ্যে সুমিকে নিয়ে ওই শিক্ষক বেশ কয়েকবার বিভিন্ন জায়গা ঘুরেছেন ও সময় কাটিয়েছেন। কিন্তু গত ২ আগষ্ট মাষ্টার্স পরীক্ষা শেষে সুমি ওই শিক্ষককে বিয়ের জন্য বললে সে সুমিকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দেয়। তার কিছুক্ষণ পরেই সুমীকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা ঘটনায় প্রশাসন দ্রুত বহিষ্কার সহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে থাকলেও দলীয় শিক্ষক হওয়াতে এ ঘটনায় কোন কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। আগামী কাল বিভাগের পক্ষ থেকে মিলাদ মাহফিল ও শোক র‌্যালীর আয়োজন করা হয়েছে।