ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

 

কারাতে একটি জাপানী শব্দ। কারা -অর্থ খালি, তে -অর্থ হাতে, কারাতে অর্থ খালিহাতে। খালিহাতে যুদ্ধ করার কলা কৌশলকে কারাতে বা মার্শাল আর্ট বলে।

কারাতে বা মার্শাল আর্ট এর উৎপত্তির সঠিক ইতিহাস জানা না গেলেও বিশেষজ্ঞদের ধারনা তিব্বত থেকে আদি কারাতের উৎপত্তি। হাজার হাজার বছর আগে বৌদ্ধ বিক্ষুরা ধ্যান অথবা ধর্ম প্রচারে বন্য প্রাণী থেকে নিজেকে রক্ষা করা জরুরী হয়ে পড়ে। বৌদ্ধ বিক্ষুরা বন্য ও হিংস্র প্রাণীদের হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করার জন্য তাদেরকে অনুসরণ করত্‍, তখন থেকেই – মাঙ্কি স্টাইল, স্নেক স্টাইল, টাইগার ক্ল, ঈগল ক্ল ইতাদি স্টাইল এর জন্ম হয়। বহুদিন ধরে কারাতে বৌদ্ধ বিক্ষুদের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। সাধারণ মানুষের মধ্যে আসে বহু পরে। জীব হত্যা মহাপাপ তাই, বৌদ্ধ বিক্ষুরা আত্মরক্ষার্থে এর প্রয়োগ করতেন। বৌদ্ধ বিক্ষুদের দ্বারা কারাত্‍ ও দেশান্তরিত হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, কারাতে জাপান হয়ে ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন দেশে পৌছায়। তবে এটা নির্দিধায় বলা যায় যে, আধুনিক কারাতের জন্ম দ¶িণ জাপানের অকিওহানা দ্বীপ থেকে। জাপানই কারাত্‍ কে সর্বদিক জনপ্রিয় করার জন্য এটিকে খেলা হিসাবে প্রচার করেছে।

মূলত কারাত, কুংফু, মার্শাল আর্ট যে নামেই ডাকিনা কেন মূল ল¶্য ও উদ্দেশ্য একই। এক এক দেশে এক এক নামে ডাকে – ব্যান্ডো, বুদোকান, সিতু-রিও, সোতোকান, গুজা-রিও, উদা-রিও, হাফকিডো, খিউকেশিং, তাইকান্দ, কিক-বক্সিং ইত্যাদি।

কিং অফ কুংফু খ্যাত ব্র“সলী ১৯৪০ সালের নভেম্বর মাসে চাইনিজ দম্পত্তির ঘরে জন্ম গ্রহণ করে। পরে পেশার প্রয়োজনে আমেরিকা পাড়ি জমায় ব্র“সলীর বাবা-মা সঙ্গে ছোট্ট ব্র“সলীও। বড় হয়ে ছোট ছোট চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে অভিনেতার ক্যারিয়ার শুর“ করেন। পরবর্তীতে নায়ক চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আমাদেরকে দিয়েছেন অনেক কারাতে নির্ভর এ্যাকশান ছবি। ব্র“সলীর প্রচলিত ষ্টাইলের নাম ছিল জিদ কুন্ডু।

ডাব্লিউকেএফ (World Karate Federation) কারাতের সর্বোচচ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা। যার বিধি বিধান দ্বারা বিভিন্ন দেশের কারাতে ফেডারেশনের খেলা পরিচালিত হয়। অলিম্পিক, কমনওয়েল্থ, এশিয়ান ও সার্ক গেমসে কারাতে ইভেন্ট অন্তরভুক্ত করা হয়েছে। গত সার্ক গেমসে কারাতে ইভেন্টে আমাদের কারাতেকাররা একাধিক স্বর্ণ পদক অর্জন করে দেশের সুনাম বৃদ্বি করেছে।

কারাত ও কুংফু স্টাইলগত পার্থক্যের কারণে একসাথে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় না। ডাব্লিউকেএফ এর অফিসিয়াল ষ্টাইলের মধ্যে ৪টি স্টাইল অর্ন্তভূক্ত করেছে – সিতু-রিও, সোতোকান-রিও, গুজা-রিও, উদা-রিও ।

কারাতে প্রতিযোগিতা দুটি গ্র“পে অনুষ্ঠিত হয়। কুমিতি (লড়াই), কাতা। কাতা বলতে বুঝায় আত্মর¶া মূলক কলাকৌশলের পূর্ব প্রস্তুতি। বা কলা কৌশলের সম্মিলিত প্রশি¶ণ। কাতা প্রতিযোগিতা জুনিয়র গ্র“প ও সিনিয়র গ্র“প এ দুইভাগে হয়ে থাকে। কুমিটি বা লড়াই প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে ওজন শ্রেণীতে।

বেল্ট অর্জন বা গ্রেডিং প্রত্যেকটি বেল্ট এর ¶েত্রে একটি নির্দিষ্ট সিলেবাস সম্পন্ন করার পর পরী¶ার মাধ্যমে উত্তীর্ণ শি¶ার্থীদেও বেল্ট প্রদান করা হয়। বেল্টের ধাপগুলো হলো – সাদা, সবুজ, কমলা, নীল, বেগুনী, বাদামী ও ব­াক। প্রত্যেকটি ষ্টাইলেই এই সাতটি বেল্টে উত্তীর্ণ হওয়ার পর ব­াকবেল্ট প্রদান করা হয়। ব­াকবেল্ট ডিগ্রী অর্জনের পরের ধাপ ড্যান, ব­াক বেল্ট ১ম ড্যান থেকে ১০ ড্যান পর্যন্ত হয়ে থাকে। এর মধ্যেও অনেকে গ্রান্ডমাষ্টার উপাধি অর্জন করে।

কুমিতি বা লড়াই প্রতিযোগিতা তিনটি স্তরে হয়ে থাকে : ফুল কণ্ট্রাক্ট, সেমি-কণ্ট্রাক্ট, নন-কন্ট্রাক্ট। ডবি­উকেএফ এ নন-কন্ট্রাক্ট ভিত্তিতেই খেলা পরিচালিত হয়ে থাকে। কারাতে শি¶ার মাধ্যমে গুর“জনদের ভক্তি -শ্রদ্ধা, শরীর ও মনকে সতেজ করে। আত্মর¶ার মাধ্যমে শত্র“ মুক্ত হওয়া এবং মুক্ত চিন্তা ও বুদ্ধি বৃদ্ধির বিকাশ ঘটার মাধ্যমে আত্ম বিশ্বাসী হওয়া যায়।

আজকাল কারাতে সহ খেলাখুলার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে শিশু-শিশোররা। প্রচন্ড প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে বাচ্চাদেও আরো যোগ্য প্রতিযোগী হিসাবে গড়ে তোলার দিকেই নজর দিচ্ছে অভিভাবক মহল। মাঠের ¯^ল্পতার দ্বর“নও কম্পিউটার গেমকেই বাচ্চাদের বিনোদনের একমাত্র মাধ্যম হয়ে উঠছে। এর ফলে মেধায় শানিত হলেও খেলাধুলার অভাবে শারীরিকভাবে অপরিশ্রমী হয়ে উঠছে।