ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

গতকাল ১৫ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার রাতে রাজধানীর পল্লবীতে রাজীব হায়দার নামে একজন ব্লগারকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। যিনি ‘থাবা বাবা’ নামে সামহ্যোয়ারইন ব্লগ ও আমার ব্লগে লিখতেন এবং শাহবাগ আন্দোলনে একজন সক্রিয় কর্মী ছিলেন। এ ঘটনা খুবই উদ্বেগজনক। একজন নবীন ব্লগ লেখক হিসেবে আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে খুনীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নিয়ে এসে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

ব্লগ একটি মুক্ত চিন্তার মাধ্যম। এর মাধ্যমে নিজস্ব মতামত প্রকাশই হচ্ছে একজন ব্লগারের বৈশিষ্ট্য। এভাবে মুক্ত চিন্তার ব্লগারদের হত্যার মাধ্যমে খুনীরা কি বার্তা দিতে চাচ্ছে তা এখন ভেবে দেখার বিষয়।

এ হত্যাকান্ডের সাথে ধর্মীয় মৌলবাদী গোষ্ঠি জড়িত রয়েছে তাতে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু এটাও ভেবে দেখা প্রয়োজন যে, শাহবাগ চত্বরে চলমান আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য তৃতীয় কোন পক্ষ এ ঘটনা ঘটিয়ে আন্দোলনকে সংঘাত-সংঘর্ষের দিকে নিয়ে যেতে চাচ্ছে কিনা। আমার এ ধারণা অন্য কারোর কাছে কতটুকু যুক্তিযুক্ত হবে জানি না। তবে আমি মনে করি এটা কোন অমুলকও নয়।

কাজেই, শাহবাগ চত্বরের আন্দোলনকারীদের উচিত হবে ধৈর্য্য সহকারে পরিস্থিতি মোকাবেলা করা। হঠকারী কোন সিদ্ধান্ত না নেয়া। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ যদি কোন হঠকারী সিদ্ধান্ত নেয় তাহলে আন্দোলন সফল পরিণতি লাভ করতে পারবে না, উপরন্তু আন্দোলনকারীরা বিপদের মুখোমুখি হবার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। কাজেই আন্দোলনকারীদের সবক্ষেত্রে চোখ কান খোলা রেখে সতর্কতা অবলম্বন করাই শ্রেয় মনে করি।

সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে ছড়িয়ে পড়ুক আন্দোলনের গতিধারা। জয় হোক তরুণ প্রজন্মের।