ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

স্বাধীনতার ৪২ বছর পার হলেও আমরা এখনও প্রকৃত স্বাধীনতার স্বাদ পেলাম না। সত্যিকার অর্থে আমরা এখনো পরাধীন। যখন যে দল ক্ষমতায় আসে তারাই বলে এদেশ আমাদের। আমরা জনগণের দাবী আদায়ের জন্যই অন্দোলন করছি। জনগণের দোহাই দিয়ে আওয়ামীলীগ এবং বিএনপি উভয় দল বিভিন্ন ইস্যুতে নানা রকম কর্মসূচী দিচ্ছে । আর তাদের এহেন কর্মকাণ্ডে নিষ্পেষিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। কী নিদারুণ কষ্টেই না কাটছে এইসব মানুষের প্রতিটি সময়।কেউ কোথাও নিরাপদ নয়। দয়া করে আপনারা (আওয়ামী লীগ ও বিএনপি) নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির এই খেলা বন্ধ করুন।আপনারা কি আদৌ কখনও জনসাধারণের মতামত নিয়েছেন বা তাদেরকে জিজ্ঞেস করেছেন তারা কি চায়? এই যে গত ১০, ১১ ও ১২ ই মার্চ বিএনপির মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে নাশকতা প্রতিরোধের নামে আওয়ামীলীগ যে নীরবে হরতাল পালন করল তাতে কি জনগণের জন দুর্ভোগ কমেছে নাকি বেড়েছে তা আওয়ামী লীগকে ভেবে দেখার জন্য অনুরোধ করছি। আবার পক্ষান্তরে বিএনপি যে আগামী ২৯ মার্চ হরতাল ডেকেছে তাতে জনগণের ক্ষতি ছাড়া কোন লাভ হবে কি? বিএনপিকে বিষয়টি ভেবে দেখার জন্য অনুরোধ করছি। আসলে সাধারণ জনগণের ইশ্বর ছাড়া দেখার কেউ নাই। সকল রাজনৈতিক দলই তাদের নিজ নিজ স্বার্থসিদ্ধির অপচেষ্টায় লিপ্ত। আমরা জানতে চাই এ দেশ কার? এদেশ কি আওয়ামীলীগের নাকি বিএনপির? না কি সাধারণ মানষের? এখন আমাদের ইশ্বর ছাড়া আর কারো কাছে কিছু বলার নাই।সবাই ইশ্বরের কাছে প্রার্থনা করে বলুন- হে ইশ্বর আমাদের জন্য যোগ্য শাসক নিযুক্ত করুন। আরো প্রার্থনা করুন, হে ইশ্বর স্বাধীনতা রক্ষা করার ক্ষমতা না দিয়ে কোন দেশেকে স্বাধীনতার বিজয় মালা পরিয়ো না।