ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

আজকের প্রায় সব দৈনিকের হেডিং এ পড়লাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মহসীন হলের ছাত্রলীগের টেন্ডারবাজির সংঘর্ষের খবর। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে ক্রমান্বয়ে ছাত্র রাজনীতির যে ভয়ংকর পরিণতি আজকের এই অবস্থানটিতে পৌঁছে দিয়েছে একসময়ের ঐতিহ্যবাহী ছাত্র রাজনীতিকে তার জন্য কে বা কারা দায়ী তা নিয়ে অভিজ্ঞ বোদ্ধা মহল প্রতিনিয়ত লিখছেন, তাতে সংশ্লিষ্ট ছাত্র নেতানেত্রীকর্মীর কি এসে যায় ! অথচ তা যে সাধারণ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের জন্য কি দুর্বিসহ হয়ে দাঁড়িয়েছে তা কেবল ভুক্তভোগীই জানে। আর জানে আশপাশের শংকিত মানুষ। অথচ একসময় আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামে অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুর ডাকে উত্তাল গণজোয়ারের প্রধান শক্তি হিসেবে নিরলস প্রণোদনামূলক কাজের উজ্জ্বল স্বাক্ষর রেখেছিল এই ছাত্র সংগঠনই — ভেবে হতবাক হই। বিশ্ববিদ্যালয় আজ তাদের দ্বারাই চরম কলুষিত। শুনেছি শিক্ষকরাও দলীয় ক্যাটাগরিভুক্ত, ভাবা যায় ! দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠে পাঠ নিতে এসে তারা পরস্পরকে কুপিয়ে জখমিত করছে টেন্ডার বাণিজ্যের জন্য — এই দৃশ্য বিশ্বের কাছে আমাদের ছাত্র সমাজের ভাবমূর্তিকে কোন পর্যায়ে নামিয়েছে তা আজ সংশ্লিষ্টদের গভীরভাবে উপলব্ধির সময় হয়েছে এবং এ থেকে যে করেই হোক উত্তোরণের পথটিও তাদেরই তৈরী করে দিয়ে যেতে হবে ভবিষ্য ছাত্র সমাজের জন্য। নইলে হয়তো অভিভাবক ও সাধারণ শিক্ষার্থীরাই অতিষ্ঠ হয়ে আওয়াজ তুলবে ‘ছাত্র রাজনীতি বন্ধ চাই’ এবং তাতে আপামর জনসাধারণের পূর্ণ সমর্থনা থাকবে বলে মনে করি।

***
nurunnaharshireen@yahoo.com