ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 
images

আগস্ট আসে প্রতিবছর প্রকৃতির নিয়মে। এই আগস্টে বাংলাদেশের স্থপতিকে চরম অন্যায় হত্যাকাণ্ডের শিকার বানানো হয়েছিলো ১৯৭৫ -এ। যাঁর জন্ম না হলে এই বাংলাদেশের জন্মই হতোনা কোনওদিন। এদেশের অবিসম্বাদিত সংগ্রামের নেতৃত্ব দানকারী মহান বাঙালি নেতার নাম মোছার এক নিকৃষ্টতম ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ১৯৭৫ এর পনের আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয় তাঁরই প্রিয় বাড়িতে। যে বাড়িটি বাংলাদেশের স্বাধীনতার সংগ্রামে ঐতিহাসিক এক স্মৃতির স্বাক্ষর আজও। আমি তাইতো ধানমণ্ডিস্থ বত্রিশ নম্বরের বঙ্গবন্ধুর বাড়িকে “ইতিহাসবাড়ি” বলতে ভালোবাসি। সেসব স্মৃতিময় কালের অনেক স্মরণযোগ্য কথামালা লিখেছি আমার অনেক লেখাতেই।

বায়ান্ন হতে ঊনসত্তুর, সত্তুর, একাত্তুরের স্বাধীনতা পর্যন্ত প্রতিটি অধ্যায় যাঁর নেতৃত্ব ছাড়া অর্জিত হতোইনা তাঁর সে সংগ্রামী নেতৃত্ব আজকের স্বাধীন বাংলাদেশের সব নাগরিকের অবনত হৃদয়ে স্মরণ না করা মানে অবিশ্বস্ততা নিজ দেশের অর্জিত স্বাধীনতার নেতৃত্বের অবিসম্বাদিত ঐতিহাসিক সত্যর প্রতি। আমরা নিশ্চয় কৃতঘ্ন জাতি হিসেবে চিহ্নিত হবার মতো জাতি না। তাই আমার আজকের এ এপিটাফ নিবেদন করছি বাঙালি জাতিসত্তার কাছে, বাংলাদেশের সকল জাতিধর্মবর্ণের নাগরিকের কাছে ।

জাতির পিতার কবরে এপিটাফ

এখানে শায়িত মহান বাঙালি মৃত্যুঞ্জয়ী প্রাণ।

এখানে ঘুমিয়ে বাংলাদেশের স্থপতির প্রাণ।

এখানে দুদন্ড দাঁড়িয়ে অানত হও  –

হে বাঙালি যদি না কৃতঘ্ন হও।

এখানে হৃদয়চেরা গাও গান  –

অশ্রুজলের রক্তজলের সেই গান  –

এইখানে দাঁড়িয়ে সালাম জানাও।
এইখানে ঘুমিয়ে যে নেতা তাঁকে প্রণতি জানাও। তিনি হৃদয়ে জাগ্রত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি হৃদয়ে জাগ্রত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

 

আগস্ট ২০১৪ ইং
ঢাকা বাংলাদেশ।