ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

ভোর। ভোরের চিত্র মানেই সূর্যমাখা দারুণ রাঙা সোনালি দিন – এমন ভাবনা অাশায় হৃদয় জাগায় অামাদের। অামরা যারা দেখেছি একাত্তুর – বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য মরণপণ মুক্তিযুদ্ধ – মুক্তিযুদ্ধের নয় মাসের সেই শঙ্কা এবঙ একই সঙ্গে স্বাধীনতার রাঙা সূর্যকে বুকে ধারণ করা একটি সবুজ পতাকা – অই পতাকা অামাদের স্বাধীনতার জ্বলন্ত প্রতীক। একাত্তুরে সকল ধর্মাধর্মের ঊর্ধ্বের চিন্তাধারার নেতৃত্ব হতে স্বাধীনতার জন্ম। যে স্বাধীনতা কেবল মুসলমান নয় সকল ধর্মের অধিকার রক্ষার মহতি উদ্দ্যশ্য নিয়ে নেতৃত্ব পেয়েছিলো বলেই জাতিধর্ম বিবেচ্য হয়নি। স্বাধীনতার প্রশ্নে একটি পরাধীন জাতির সব ধর্মের মানুষের প্রাণের উচ্চকিত শ্লোগান ছিলো – জয়বাংলা।

মুক্তিযুদ্ধে জয়বাংলা শ্লোগান জাতিকে প্রণোদিত করেছে। ঐক্যবদ্ধ করেছে। স্বাধীনতার যুদ্ধে অভিন্ন একাত্মতা এতই অখন্ডনীয় ছিলো যে শত্রুপক্ষ চরম জিঘাংসায় উন্মত্ত অাক্রমণ করেও পরাজিত হবার ইতিহাস রচেছে বিশ্বে । যুদ্ধজয়ের শপথে মুক্তিযোদ্ধার সঙ্গে সকল মুসলমান-হিন্দু-খৃষ্টান-বৌদ্ধ তখন অভিন্ন হৃদয়।

অাজকের বাংলাদেশের ভোর কি জাগে স্বাধীন সেই অভিন্নতার মন্ত্রণায়? কোথায় সেই শাণিত বজ্রকন্ঠ নেতৃত্ব হতে পাওয়া উদারতা? বাংলাদেশ কেন কুয়াশাচ্ছন্ন ছন্নমতি ধর্মান্ধতায় অন্ধ অাজিকে? ভোরগুলি তাই কি বিদ্বেষবিষে ঘোলাটে?

ডিসেম্বর বাংলাদেশের বিজয় মাস। আসন্ন ডিসেম্বর কি বিজয়ের অশ্রু ও রক্তমাখা ঐতিহাসিক ইতিহাসকাল জাগিয়ে বলতে এসেছে – জাগো, অন্তর হতে বিদ্বেষবিষ নাশো ! হ্যাঁ, এইদেশে সচরাচর অাসেনা যে ডাক – সে ডাক হৃদয় জাগাতে প্রতি ডিসেম্বরেই অাসে ! ভোরের কুয়াশা যতই তারে ঢাকতে চায় – সে সূর্যরেখায় ধূলিকণাও জ্বলে ! কে সেই সূর্যালোক বধিতে পায় ! উহারা অন্ধতায় উন্মাদ। উহাদের উন্মত্ততায় এক দঙ্গল অন্ধ ইন্ধনদাতা অধর্মের অাগুনে পোড়ায় পতাকা, পোড়ায় জাতির বিবেকের সীমাবদ্ধতা। সে কোন কৃপাণ অাছে জগতে বধিবে সূর্যের প্রাণ ! বলি যে সূর্যে রয়েছে লেগে বাংলাদেশের রক্তজলের গান।

আজও অনেক মানুষ আছে যাদের রক্ত মানেনা কোনও বিবেকহীন অচেতন অধর্ম। তাঁরা নমস্য বীর মুক্তিযোদ্ধার রক্ত। বীরাঙ্গনা – তাঁরাও মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীনতার ধারক-বাহক মাথাউঁচু সেইসব মানুষ আজও মানুষদের মাথাউঁচু রাখার মন্ত্রণা যোগান বলে ভোরের অালো ছড়িয়ে পড়ে তরুণ উত্তরসুরীর রক্তে। অাগামী ভোরগুলি তরুণ সূর্যালোক জ্বালিয়ে দিক বাংলাদেশের হৃদয় হতে হৃদয়ে। অন্ধ, ধর্মান্ধ দল নিপাত যাক।

আসন্ন ডিসেম্বরের বিজয় মাস হৃদয় হতে হটিয়ে দিক সকল অধর্মের নীচুতা – এ অামার চাওয়া, একান্ত বিবেকজাত। জয়বাংলা বলতে অাগামীর কোনও শিশুর হৃদয় দিধান্বিত না হোক। জয়বাংলা।।

২৯শে ডিসম্বর। ২০১৪ ইং।