ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 
images

সেদিন ১৯৭১ এর ১৪ই ডিসেম্বরের দিন – যেদিন এদেশীয় অালবদর-অালশামস-রাজাকারের দল তাদের পশ্চিম পাকিস্তানের প্রভুদের নির্দেশে তৈরী বাংলাদেশের প্রধান বুদ্ধিজীবীদের হত্যার জন্য তালিকা ধরে তাঁদের বাড়ি গিয়েই তুলেছে গাড়িতে। তারপর তাঁদের অার কোনও হদিস পায়নি বিজয় অর্জিত না হওয়াতক বাড়ির লোকজন। তখন বাংলাদেশের বহু এলাকা মুক্ত। স্বাধীনতার পতাকা উড়ছে। অার – “জয়বাংলা” ধ্বনিমুখর বাংলাদেশ তার স্বপ্নের স্বাধীনতার দোরগোড়ায় । স্বাধীনতার সেই সে মাহেন্দ্রক্ষণটি বেছে নিয়েছে শয়তান ঘাতক শত্রুপক্ষ। তখন কিন্তু পশ্চিম পাকিস্তানের জান্তারা প্রায় অবদমিত, পরাজয়ের প্রস্তুতি পর্বে। এবঙ এদেশীয় শয়তানের দল অালশামস-অালবদর-রা ঠিক তেমন ক্ষণটিকে হত্যাকান্ডের জন্য পরিকল্পনা করে ঘটায় ইতিহাসের চরম পৈশাচিক উপায়ে একটি দেশের মেধাবী মানুষদের হত্যার নিষ্ঠুরতম ইতিহাস।

সেদিন রায়ের বাজার বধ্যভূমিতে চোখবাঁধা-হাতবাঁধা বরেন্য ব্যাক্তিত্বদের নৃশংস নির্যাতন চালিয়ে হত্যাকান্ড সম্পন্ন করে ঘাতক পিশাচরা। এবঙ পৈশাচিক উল্লাসে মাতে। যেসব বুদ্ধিজীবি সেদিন শহীন হলেন তাঁদের মধ্যে ছিলেন – অধ্যাপক মুনীর চৌধুরী, ডঃ অালীম চৌধুরী, অধ্যাপক সন্তোষচন্দ্র ভট্টাচার্য, সাংবাদিক-লেখক শহীদুল্লাহ কায়সার, সাংবাদিক সেলিনা পারভীন, ডাঃ ফজলে রাব্বী, ডঃ অাবুল খায়ের, অানোয়ার পাশা, ডাঃ মোহাম্মদ মুর্তজা, অধ্যাপক মোঃ মনিরুজ্জামান প্রমুখ গুণীজন। জাতিকে মেধাশূণ্য করার কি অন্যায় কি অমানুষিক হত্যাকান্ড সেদিন ঘটিয়েছে ঘাতক দল ! অাজও ভাবতেই হৃদয়ে অগ্নিদাহ দ্রোহের।

অামরা অইসব জাতীয় কুলাঙ্গার পশ্চিম পাকিজান্তার দোসর রাজাকারদের কেবল মাত্র ফাঁসির দাবী করেছি !ওরা অারও অধিক শাস্তির যোগ্য অমানুষের দল। পশুও এত জঘন্য এত নিষ্ঠুর নয়। পশুর অধম মানুষধারী অমানুষ উহারা। অাজ অামরা উহাদের চরম অন্যায়ের উচিত দন্ডাদেশ চাইছি। অামাদের চাওয়া পূরণ না হলে উনাদের অাত্মিক শান্তি কোনওদিন মিলবেনা বলেই অাজ অামরা বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধী ঘৃণিত ঘাতকদের সমুচিত শাস্তির দাবীতে অনড়।

অাজ নমস্য সকল শহীদ বুদ্ধিজীবিদের অাত্মিক শান্তি প্রার্থনা করি। তাঁদের পরিবারের সদস্যদের অামাদের হার্দিক সমবেদনা জানাই। অাজ অামরা যেন বধ্যভূমিতে দু’দন্ড দাঁড়িয়ে বুদ্ধিজীদের হাজার সালাম জানাই।

চার লাইন উৎসর্গ করছি তাঁদের স্মরণে অাজ –
এখানে জাগ্রত অামাদের অনেক নমস্যরা –
এসোগো বন্ধুরা অাজ বধ্যভূমিতে দাঁড়াই –
দু’দন্ড অানত অশ্রুপাতে কাতর হৃদয়টাই –
যদি পারি তো তাঁদের জন্য দিই রক্তক্ষরা।

১৪ই ডিসেম্বর। ১৪২১ বঙ্গাব্দ।
ঢাকা। বাংলাদেশ।