ক্যাটেগরিঃ ব্যক্তিত্ব

 

১৮৬৯ সাল ২ অক্টোবর ভারত-এর গুজরাটের পোরবন্দর-এ মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী-র জন্ম। পিতা কাবা গান্ধী। মাতা পুতুলি বাঈ। তরুণ বয়সেই মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী সেই সময়কার আর্থ-সামাজিক-বৈষম্য-নীতি-র শিকার সাধারণ জনগোষ্ঠীর অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তাঁর অহিংসবাদ নীতির প্রচারে নামেন। এবঙ নিজেই কৃচ্ছ্বতার মধ্য দিয়ে জনসাধারণকে নিয়ে আন্দোলনের কাজ শুরু করেন।

অচিরেই তাঁর অহিংসবাদ আন্দোলন বিশ্বে এক অবিস্মরণীয় নীতি-র জন্ম দিয়ে তাঁকে তাঁর বিরলপ্রজ কর্মযোগের জন্যই মহাত্মা গান্ধী হিসেবে চিরনমস্য ব্যক্তিত্বে অধিষ্ঠিত করে। তাঁর সুমহান কর্মযোগ সে সময়ের উঁচু-নীচু সর্বস্তরের গণমানুষের হৃদয়জয়ী সঞ্জীবনী শক্তি হয়েই প্রণোদনা যুগিয়েছে বৃটিশ ঔপনিবেশিক সাম্রাজ্যবাদ-এর সকল সহিংসতার বিরুদ্ধে। তিনি তখন গোটা বাংলা চষে বেরিয়েছেন নগ্নপদে খালিগায়ে কেবলমাত্র স্বহস্তে বোনা চরকায় মোটা খদ্দরের ধুতি জড়িয়ে তাঁর অহিংসবাদ-এর মাধ্যমে 'যুদ্ধ নয় শান্তি' প্রতিষ্ঠার জন্য। তাইতো আজও তিনি বিশ্বে চিরনমস্য আসনে।


১৯৪৮ সাল ৩০ জানুয়ারী দিল্লীর এক প্রার্থনাসভায় নাথুরাম গডস নামের একজন উগ্রপন্থীর গুলিতে মহাত্মা গান্ধীর জীবনাবসান ঘটে। এমন মহান প্রাণের প্রয়াণ দিবসে তাঁর আত্মার প্রতি সালাম, শ্রদ্ধাঞ্জলি।
৩০ জানুয়ারী ২০১২ইং