ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বিএনপি-র ডাকা হরতাল-এর তৃতীয় দিন আজ। যথেষ্ট ভাঙচুর-হানাহানিময় এবঙ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাস পুড়িয়ে ইলিয়াস আলী-র গুম-এর প্রতিবাদে হরতাল পালিত হচ্ছে। আমরা অবশ্যই চাই ইলিয়াস আলী-র গুম-এর গর্ত থেকে উদ্ধার / বেরিয়ে আসার চিত্র দেখতে। কিন্তু তার জন্য এভাবে কর্মদিবস বিঘ্নিত করতেই হবে কেন ???? পিকেটিং-এর নামে আগুন-ভাঙচুর-ঠ্যাঙানি-র মত্ততা কেন ???? জরুরী কাজে / চিকিতসার জন্য দূর-দূরান্ত থেকে পথে বেরুনো মানুষের চরম ভোগান্তি পোহাতে হবে কেন ????? জনগণের সংশ্লিষ্টতাবিহীন হরতাল-কে জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত হরতাল বলা হবে কেন ????

গাড়ি ভাঙচুরের ভয়ে মানুষ গাড়ি বের করেনা। বাস-এ আগুন দেবার ভয়ে বাস রাস্তায় নামায়না মালিকগন। ছেলেমেয়েরা পিকেটারদের ঠ্যাঙানি না খাওয়ার জন্য / ধাওয়া / পালটা ধাওয়ার শিকার না হয় সে ভয়ে স্কুল-কলেজ-কামাই দেয়াই ভালো ভেবে ঘরবন্দী।

আর শিক্ষাজীবন-এর সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ এসএসসি পরীক্ষা বাতিল হওয়ার মতো দুঃখজনক-নিন্দনীয় দৃষ্টান্ত রূপে শিক্ষার্থী ও সর্বমহল থেকেই প্রতিবাদ ওঠার মতো ঘটনার জন্ম দিয়েছে এবারের হরতাল। এমন হরতাল কে বা কাহারা চায় তা জনগণ জানে। যারা এমন জনস্বার্থ বহির্ভূত হরতাল জনগণের চাপিয়ে চরম ভোগান্তির শিকার বানিয়ে ভাষণ দেন গলা ফাটিয়ে তাদের নিশ্চয় জনগণ প্রত্যাখ্যান জানাবে আগামীতে। অন্ততঃ হরতাল-এর নামে এমন জনদূর্ভোগ-এর চিত্র আমরা আর আগামীতে দেখতে চাইনা এটাই সর্বমহলের আওয়াজ হউক আজ।

এ নিয়ে আজ ছড়া লিখেছি , শেয়ার করছি …. শিরোনামঃ

আজ হরতাল নিপাত যাক মানুষ মুক্তি পাক

তিনদিনভর হরতালে
কাজ নেই তো লাগাও হাওয়া পালে !
জ্বালাও আগুন ভাঙো রিক্সাগাড়িঠ্যালা তালে-তালে
ইটপাটকেল ধাওয়া খেয়ে পালাও হাসপাতালে !
না জানি কি অন্ধকারের ধোঁয়ায় সেঁধাই পাতালে
না জানি কি পাওয়া আছে জনগণের পোড়াকপালে !

জনগণের চাওয়া নয় হরতাল করে দলে
ওরে বাপ ইলিয়াস আয়রে দলের কোলে !

২৪ এপ্রিল ২০১২ ইং