ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

বাংলাদেশ-এর ঐতিহাসিক বিজয়দিনের ইমেজ

এই ছবিটি আমাদের ঐতিহাসিক বিজয়-এর ইমেজ। কেন জানিনা, আজ অনেক গভীর করেই সেদিনের অর্জন, যার বুকের ভিতর সহস্র আত্মত্যাগের সুতীব্র রক্তজল …. সেসব বিষমভাবেই মনে পড়ছে …. আজ যেন আমরা সকলেই আজ সেই অর্জন-এর মূলমন্ত্রণা থেকে অনেক দূরে সরে গেছি …. নিজেদেরই তৈরী সহস্র আত্মঘাতি জঞ্জালভারে আমরা আমাদের ঐতিহাসিক বিজয়ানন্দের হারমোনি বাজাতে ভুলে গেছি ! আমরা আজ বিকট খেয়োখেয়িময় প্ল্যাকার্ডে-ব্যানারে ভুল-বানানে ততোধিক ভুলের বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে রাস্তায় নেমেছি ! পিনকাটা রেকর্ড-এর মতোই আমাদের পেছনে বাজছে বাংলার মনোটোনাস কালের গান “এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবেনাকো তুমি” / “আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি-ই-ই-ই” ! অথচ সর্বত্রই পারম্পর্যহীন অদ্ভূত স্বার্থের উল্লাস ! দেখেশুনে নিজের প্রতিও ক্যামন এক অনাস্থা / অবিবেচনাপ্রসূত আশ্চর্য ক্ষোভ জন্মাচ্ছে। অথচ আমার হাতে নেই সামান্যতম ক্ষমতা যা দিয়ে লহমায় ফিরিয়ে দিই বাংলার মানুষের একান্ত ঐচ্ছিক অধিকারের ঘুড়ি। যে ঘুড়ি চিরকাল উড্ডীনতার জয়বার্তা ঘোষণা করবে জগতে। যার ক্ষমতা অফুরান শক্তির উতস ছুঁয়েই আমাদের যোগাবে আগামীর নির্ভুল স্বপ্ন ছোঁয়ার অজর মন্ত্রণা।

কিন্তু, না, এই কাঙ্ক্ষার কথাটি লিখতে গিয়ে কেন যে স্বপ্নপোড়া দুচোখ জলে ভাসছে ! কেন যে কোথাও তত সজোর কড়ানাড়ার সাড়াও শুনছিনা ! অশ্রুতকাল হতে কেবল ক্ষীণতম একটি আওয়াজ হয়তো কোথাও বাজছে , শুধু অপেক্ষা, অকস্মাত অনেক বোধের স্ফূরণে তা ছড়িয়ে পড়বে, পড়বেই। অনেক সাধের স্বদেশ আমাদের সে কি এভাবে পারম্পর্যহীনতায় / হানাহানিময়তায় পুলিশি মারের দাপটে / অবৈধ-বাণিজ্যে / স্বার্থবাজের উল্লাসে আত্মঘাতি জঞ্জালভারে তলিয় যাবে ! সে কি আমরা হতে দিতে পারি কিছুতে !

প্রশ্নটি রাখলাম সবার জন্য। আশাকরি “জন্ম যদি তব বঙ্গে তব তিষ্ঠ ক্ষণকাল” কবির সেই বাণীটি মনে এনেও অন্ততঃ দুদন্ড থমকে দাঁড়িয়ে নিজেরে শুধোবেন / শুধরাবেন। প্রশ্নটি সমানভাবেই আমার নিজের জন্যও প্রযোজ্য মনে করেই লিখলাম “আজ একান্ত চাওয়া সবার বোধোদয়ে হউক স্বদেশের ভালো”। ভালো থাকুক প্রিয় বাংলাদেশ। ভালো থাকুন সবাই। শুভেচ্ছা।

১ জুন ২০১২ ইং