ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

প্রশ্নটি খুব সহজ , উত্তর ও তো জানা – তাই আর কোন প্রশ্ন রাখতে চাই না । প্রশ্ন করলে উল্টো আবার পাল্টা প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে, প্যাদানি ও জুটতে পারে। শুধু জিজ্ঞাসা – ঐ ৫০ টাকা গেল কই?

তাছাড়া নির্বাচনের জন্য টাকা নেওয়া তো কোন অপরাধ না । খুব বেশী হলে চাঁদাবাজি বলতে পারেন আপনি, তবে নিন্দুকেরা এটাকে ” UNETHICAL” বলতে পারে। আমি ত বলব এটা মহৎ কাজ Like Earning Remittance – Foreign Currency. তাছাড়া ম্যাডাম টাকা নিয়েছেন ত নির্বাচনের জন্য – গনতন্ত্রে উত্তরনের জন্য । নিন্দুকেরা অকারনেই এর মাঝে “বেঈমাণি- রাষ্ট্রদোহিতার” গন্ধ পায়, তারা কী জানে না যে আমার ম্যাডাম একজন “আপোষহীন নেত্রী” । Hardcore নিন্দুকেরা বলতে পারে এখান থেকে কিছু টাকা ম্যাডাম মেরে দিয়েছেন যা কিনা “কালো” রঙের (টাকা) হওয়ায় উনি জরিমানা দিয়ে সাদা করেছেন কিন্তু আমার কাছে গোলক ধাঁধাটি কিন্ত ভিন্ন – ১৯৯১ এ জনসংখ্যা ৭ কোটি, ভোটার ১ কোটি, আইএসআই দিল ৫০ কোটি টাকা, সুতরাং গড়ে ভোটার প্রতি ৫০ টাকা । সংখ্যা তত্ত্বের ভুল মার্জনীয় । তাহলে আমি ও ত ৫০ টাকা পাই, তাই না ? নিন্দুকেরা অকারণেই তারেক জিয়া – কোকোকে দোষারোপ করে, তখন’ত তারা ছিলেন ” ফুলের মত পবিত্র “- তাহলে ঐ ৫০ টাকা গেল কই ?

তবে ভালো লাগে এই জন্য যে মতিউর রহমান-মাহফুজ আনাম-জাফর ইকবাল, মোজাফ্ফর আহমদ- ব্যারিষ্টার রফিকুল ইসলাম -বদরুদীন উমর-আসিফ নজরূল প্রমূখ ঠিকাদার (জ্ঞানের ঠিকাদার) গনেরা
এখন ও কি সুন্দর “১ মিনিট নিরাবতা পালন করছেন ” !!!

Note: আমার এই লেখাটা মোটে ও কাল্পনিক না, আর ঘটনা চরিত্রগুলো বাস্তবের সাথে মিল রয়েছে । যদি কোন চরিত্র বা ঘটনার মিল পান তাহলে মোটেও কাল্পনিক বা কাকতালীয় ভাবার অবকাশ নাই বরং ধরে নেবেন এটা আপনাকেই বলা হচ্ছে । ধন্যবাদ ।