ক্যাটেগরিঃ মতামত-বিশ্লেষণ

 

সম্প্রতি সিপিডি’র গবেষণা পত্রে ঘোষণা করা হয়েছে বাংলাদেশ সক্ষমতার দিক দিয়ে এক ধাপ পিছিয়েছে। অর্থনীতিসহ বেশ কয়েকটি বিভাগেই বাংলাদেশের অবস্থান এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক নীচের দিকে। বিষয়টা শুধু চিন্তারই নয় রীতিমত শঙ্কিত হওয়ার মত না!!! স্বাধীনতার পর ৪০ বছরের চেষ্টাতেও দেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে কোন উন্নয়ন সম্ভব হয়নি। কেন হয়নি??? খুব মুখস্ত উত্তর দিই আমরা। সরকার দুর্নীতি করেই উন্নয়নকে পিছিয়ে দিয়েছে। এটাই কি একমাত্র সত্য। আমার ক্ষুদ্র মগজে আমি চিন্তা করে দেখেছি, বাংলাদেশের পিছিয়ে যাওয়ার জন্য শুধু সরকার দায়ী নয়। আমার মনে হয় দেশ যতটা সরকার চালায়,তার চেয়ে বেশি নিয়ন্ত্রণ করে আমলারা। সরকার তো মাত্র পাঁচ বছর দায়িত্বে থাকে। কিন্তু আমলারা কতদিন থাকে চিন্তা করুন তো। ক্ষমতার দিক দিয়ে কারা বেশি এগিয়ে?? কোন সরকারি অধিদপ্তরে দুর্নীতি হয় তার জন্য সরকার যতটা দায়ী তার চেয়ে চোরাগোপ্তা মারা আমলারা অনেক বেশি দায়ী। যদিও এসব আমলাদের অধিকাংশ রাজনৈতিক ভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত। আমার প্রস্তাব হল, বিরোধীদল থাক তার সরকার নিধন কড়া বক্তব্য নিয়ে। আমরা একটু এগিয়ে আসি।

সরকারি দপ্তর গুলোতে আপনার নিজের অভিজ্ঞতা কেমন তা ব্লগে বা ফেসবুকে তুলে ধরুন; বাস্তব অবস্থা শেয়ার করুন সবার সাথে। তবে এখানে সত্যাশ্রয়ী হ্ওয়াটা খুব জরুরী্ । দপ্তর গুলোর কি অবস্থা বা এসব দপ্তরে গিয়ে আপনি কী ধরনের বিড়ম্বনার স্বীকার হয়েছেন, অথবা কোন ধরনের আপত্তিকর বিষয় আপনার চোখে পড়েছে তা অন্যকে জানান। সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধীদলের মত এক তরফা সমালোচনা না করে দেশের বাস্তব অবস্থাটা তুলে ধরি।

এই যেমন ধরুন বিআরটিসি বাস সার্ভিস,বিদ্যুৎ, গ্যাস,পানি, শিক্ষা টেলিটক, পাসপোর্ট অফিস, সচিবালয়, অন্য দপ্তর বা বিভাগে কি ধরনের অনিয়ম, দুর্নীতি বা দায়িত্বহীনতা আপনার চোখে পড়ল, তা তুলে ধরুন। এর ফলে কিছুটা কাজ হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এটাও একটা সামাজিক আন্দোলন। এটাতে আমাদের সবার অংশগ্রহণ থাকা উচিৎ। প্রতিদিন পৃথিবী বদলাচ্ছে, আমরাও বদলাচ্ছি। কিন্তু তা যদি হয় খারাপের দিকে; তা খারাপই লাগার কথা। তাই সমাজ, দেশের উন্নয়নমুখী পরিবর্তনের আন্দোলনে সবাই অংশ নিই..সবার মঙ্গল হোক।