ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রটি আসলে কাদের দখলে!! প্রজাতন্ত্র বলে হুজুগ ভরা রাষ্ট্রটি আসলে কাদের স্বার্থ দেখছে তা বলা মুশকিল। তার আগে একটা বিষয় স্পষ্ট হওয়া দরকার দেশ চলছে কাদের কথায়,, জনগণের??? প্রশ্নই আসে না। তাহলে সরকারের?? হতে পারে তাও পুরোটা নয়। দেশ আসলে চলছে কতিপয় প্রভাবশালীদের দ্বারা।

কি নির্বিকারভাবে মানুষ মারছে পুলিশ। পুলিশ কি জানে না, মিছিল করতে আসা এসব মানুষ রাজনীতি কি এরা বুঝে না। একটা হুজুগে পড়ে এরা মিছিল করে, হরতাল করে। বর্তমান সরকারের উৎখাতের পর নতুন যে সরকারই ক্ষমতায় আসুক না কেন এদের ভাগ্যের কোনদিনই পরিবর্তন হয় না। এরা মরে নির্লিপ্তভাবে, কোন আয়োজন ছাড়াই এমনকি প্রয়োজন ছাড়াই। পুলিশগুলো কত বোকা!! এরা জানলই না কত সাধারণ মায়ের বুক এরা খালি করল। এদের প্রাণ নিয়ে মিছিল, হরতাল কি প্রতিহত করা গেছে?? যায় নি বরং বেড়েছে। আসলে মিছিল, হরতাল তো এসব সাধারণ মানুষ করে না, এদের দিয়ে করানো হয়। এরা কোন দিন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসেনা, ক্ষমতার স্বাদ এরা কোনদিন পায় না। অথচ রাজনৈতিক প্রয়োজনে এদেরই জীবন দিতে হয়। সাধারণ মানুষের কোন প্রতিনিধি কি নির্বাচন করতে পারে, এরা কি ৫,১০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে ক্ষমতায় আসতে পারে??? পারে না। তাই এদের স্বার্থ নিয়ে কেউ কাজ করে না, সংসদে কথা বলে না। বরং রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে। খুব সোজাসুজি ভাবে হিসেব করলে স্পষ্ট হয়ে যায় যে সংসদে যারা বসে তারা সবাই সমাজের বিত্তবানদের প্রতিনিধি, । ইচ্ছা থাকলেও তারা সাধারণ, কম আয়ের মানুষের প্রয়োজন বুঝতে পারে না। আমার দেশের সাধারণ মানুষগুলো কত বোকা!!! একটা দলকে ক্ষমতায় আনতে জীবন পর্যন্ত দিয়ে দেয়। অথচ এরা কখনই বুঝতে পারে না বা বুঝতে চায় না, তাদেরকে জিম্মি করে যারা ক্ষমতায় আসে তারা তাদের আপন কেউ না। বরং বিত্তবানদের প্রতিনিধি, আর তাদের কাজ বিত্তবানদের স্বার্থ দেখা। এই সত্য যেদিন এই হুজুগে বাঙালী বুঝতে শিখবে, সেদিন হয়ত দেশের রাজনীতিকরা বুঝবে………এসব সাধারণ মানুষের প্রয়োজন কতটা