ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

 

এ যেন টাকার বন্যা। সরকার দেবে এক লাখ, বিজিএমইএ দিবে এক লাখ। বায়ার কোম্পানি দেবে এক লাখ? সবাই টাকা দেবে টাকা। কেউ মানুষটাকে ফি রিয়ে দেবে না! কিম্বা দিতে পারবেনা। এক লাখ টাকায় কি মানুষ পাওয়া যায়? এক লাখ টাকা আমি বিজিএমইএকে দেব? ওরা একজন গার্মেন্টস কর্মীকে ফিরিয়ে দিক। একজনকে অন্তত একজনকে।

আমাদের দেশে মানুষের মৃত্য যেন কোন ঘটনাই না। কেউ মারা গেলে আপনজন কাঁদে। অন্যরা তেমন কষ্ট পায় না। নিষ্ঠুরেরা বলে, যে দেশে এত মানুষ সেখানে দুদশ জন মরলে কোন ক্ষতি হয়না। কিন্তু যে পরিবারের যায় সে পরিবারের কি আর ফিরে আসে? হারিয়ে যাওয়া কোন মানুষ কি আজ পর্যন্ত ফিরে এসেছে?

টাকা দিয়ে কি মানুষ ফিরে পাওয়া যায়। এ কথা টা আমি সব সময় আমার বোনদের বলি, টাকা ছাড়া জীবনের কিছু হয়না। আবার টাকা দিয়ে জীবনের অনেক কিছুই হয়না। টাকাটাই জীবনের সব নয়। টাকার সঙ্গে সঙ্গে লাগে পরিবার, লাগে বন্ধু, লাগে ভাল পরিবেশ, ভাল সমাজ, ভাল আবহাওয়া। ভাল সৃষ্টি, ভাল স্বীকৃতি।

আজ যে মানুষগুলোর পরিবারে শোকের মাতম চলছে, তাদের কি টাকা দিলে আপনজন ফিরে আসবে? বারবার এমন ঘটনা ঘটছে অথচ সরকারের কোন মাথাব্যথা নেই। রাজনৈতিক দলের কোন মাথাব্যথা নেই। মিডিয়া দুই দিন চিৎকার করে পরে আবার নিশ্চুপ! এভাবেই কি চলতে থাকবে! কথায় কথায় আমাদের দেশের টাকার অভাব। আরে যে দেশের টাকার অভাব সে দেশে কি শুধূ গাড়ির নম্বর প্রেট পাল্টানোর জন্য পাঁচশ কোটি টাকা বরাদ্দ করা সম্ভব। মোটেই সম্ভব নয়! আসলে আমাদের টাকার চেয়ে বেশি অভাব মানসিকতার! আমরা তো শুধু ছুটি টাকার পিছনে! তাই তো আমরা মারা গেলে, আমাদের ভাইবোন মারা গেলে টাকা দিয়ে আমাদের শান্তনা দেয়া হয়। দোষীদের বিচার করার দরকার হয়না। কারণ একটাই সব্বাই জানে এদের টাকা দিলেই চলে। এই যে চট্টগ্রামে বহদ্দারহাটে পিলার ভেঙ্গে মারা গেল আমাদের আরও ভাইবোন কি হবে; বিচার, প্রশ্নই ওঠে না! টাকা দিলেই তো সব হয়ে যাবে!

আর রেল -বাস সংঘর্ষে যে মানুষ আহত হলো, এর জন্য আমাদের যোগাযোগ মন্ত্রী কোন ব্যবস্থা নেবেন! নাকি আবার যারা মারা যাবে তাদের জন্য টাকার বরাদ্দ দিয়ে শান্ত থাকবেন!

টাকা দিলেই যদি সব হয়, আমি আমাদের দেশের ধনীদের কাছে ভিক্ষা চাই, নিশ্চিন্তপুরে আগুন লাগার আগের সকাল ফিরিয়ে দিন। আমি নিজে প্রতিটি বাংলাদেশীর কাছে গিয়ে ১৬ কোটি টাকা যোগাড় করে দেব? আমার অবশ্য টাকাটা যোগাড় করতে সময় লাগবে। কিন্তু আপনাদের আমার নিশ্চিন্তপুরে আগুনে পোড়া সব ভাইবোনকে সুস্থ স্বাভাবিক আগের দিনের সকালের মতো ফিরিযে দিতে হবে। ২০১২ সালের এই ২৪ নভেম্বর দিনটিকে ২১৩ নভেম্বরের মতো করে দিতে হবে! পারবেন, আমি জানি, স্বয়ং আল্লাহ, ভগবান, ঈশ্বর, বড়রাম ছাড়া আমরা মানুষরা কেউ এটি করতে পারবোনা।

তাই বিত্তবান সরকার আর বিত্তবানদের কাছে অনুরোধ প্লিজ দয়া করে আর এদেশের জনসংখ্যা বেশি তাই এদের মরে যাবার রাস্তা করে দেবেন না, এদের সুন্দরভাবে বেঁচে থাকার জন্য যা যা উদ্যোগ গ্রহণ করা সম্ভব তার সবটাই করুণ। প্লিজ! আর কত টাকার বিনিময়ে কান্না ঢাকার লড়াই চলবে! আর কতো? টাকা দিয়ে কি চোখের জল মোছা যায়?

২৬.১১.২০১২