ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

দিনটা ছিল ২৬ নভেম্বর ২০১২। আমি সেদিন এই ব্লগেই তাজরীন গার্মেন্টস এ পুড়ে কয়লা হয়ে মারা যাবার পর বন্ধুদের নিয়ে লিখেছিলাম এক লাখ টাকায় কি একজন মানুষ পাোয়া যায়? আজ আমি আবার বলছি সেই কথা। আজ বলছি নাটোরে মর্মান্তিক দূর্ঘটনায় সড়ক দূর্ঘটনায় মানুষ মারা যাবার পর।এবার একথা জানিয়েছেন আমাদের মহান মন্ত্রী, পরিশ্রমী রাজনীতিবিদ, সাংবাদিকদের প্রিয় কাদের ভাই। তিনি এবার বলেছেন – নাটোরে দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে ১ লাখ টাকা দেওয়া হবে।

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে এক লাখ টাকা ও আহতদের চিকিৎসার খরচ বহন করার ঘোষণা দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়াস্থ ঢাকা মহাসড়কে সোমবার রাত পৌনে ১২টার দিকে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে এ ঘোষণা দেন তিনি।

এর আগে বিকেলে ওই সড়কের রাজ্জাকের মোড়ে দুটি যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩৩ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। সূত্র দ্য রিপোর্ট এর।

আমার যতদূর মনে পড়ে এই মন্ত্রীই এক সময় বলেছিলেন সড়ক দূর্ঘটনারোধে মহাসড়কগুলোতে ডিভাইডার দেয়া হবে। যেন মুখোমুখি সংঘর্ষ না লাগতে পারে। এই মন্ত্রী বেশি কথা বলেন কাজ করেন কম।
এবারো এমন মর্মান্তিক দূর্ঘটনার পর তিনি কি বললেন, রাস্তায় নাকি বেপরোয়া গাড়ি চালানাের কারণে এই দূর্ঘটনা ঘটেছে। এটা তো এই গাড়ির দূর্ঘটনা ঘটে যাবার পরই মানুষ দেখেই বুঝেছে। এটা কি মন্ত্রীর আদৌ বলে দেবার প্রয়োজন ছিল কিনা জানি না।
মন্ত্রী যদি বলতেন, ঠিক কি করলে এই দূর্ঘটনা রোধ করা যাবে আর ঠিক কি কি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে সরকার তাহলে শুনে একটু হয়ত স্বস্তি পেতাম। কিন্তু তিনি হয় সেসবের কিছু বলেননি আর নয়ত রিপোর্টারের দোষ তিনি সেগুলো কোড করেননি।

দেশে প্রতিদিন প্রায় গড়ে ৩০ জন সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ হারায়। আর এটি যখন একদিনে একসঙ্গে দুটি গাড়ির সঙ্গে সংঘর্ষে ঘটে তখন একটু নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। মন্ত্রী আহতদের দেখতে যায়। মিডিয়া দুই-তিন দিন একটু বেশি কথা বলে তারপর আবার যেই কার সেই অবস্থাই চলতে থাকে। এর আর কোন পরিবর্তন হয়না।

এভাবে কি এদেশে সড়ক দূর্ঘটনার মিছিল চলতেই থাকবে, আর দেশের সরকার বাহাদুর এক লাখ টাকা দিয়ে দফারফা করতে থাকবেন ! নাকি সড়ক দূর্ঘটনারোধে সরকার আন্তরিক হবেন – আশা করি আমাদের পরিশ্রমী মন্ত্রী জনাব কাদের এটি প্রতিরোধে উদ্যোগী হবেন এবং তার সময়েই সাফল্যজনকহারে সড়ক দূর্ঘটনা কমিয়ে এনে তার সরকার এবং মন্ত্রণালয়ের সাফল্যে নতুন একটি পালক যুক্ত করবেন।

আর যদি না করেন, মন্ত্রী মহোদয়কে অনুরোধ করব, আমাকে ছয় মাস সময় দিন আমি এক লাখ টাকা জমা করে আপনাকে দেব বিনিময়ে আপনি আমাকে একজন মৃত মানুষকে ফিরিয়ে এনে দিন- আর যদি আপনার পক্ষে সেটি সম্ভব না হয় তাহলে সড়ক দূর্ঘটনারোধে আপনার সরকারের সময়ে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন, প্লিজ। শাস্তি দিন বেপরোয়া গাড়ী চালককে। ঠিক করুন ভেঙে যাোয়া রাস্তা-ঘাট। শক্তভাবে চালু করুন ট্রাফিক আইন। দেশকে একটা নিয়মতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করুন, প্লিজ। নইলে কে জানে – পরবর্তী সড়ক দূর্ঘটনার শিকার এই আমি কিম্বা আপনিই হব কিনা! তখন আবার আমার পরিবারকে যেন এক লাখ টাকা দিয়ে সান্ত্বনা দিতে যাবেন না যেন!
আপনি তো অনেক জ্ঞানী আর তাই খুব ভাল করেই জানেন, এক লাখ টাকায় মৃত মানুষকে ফিরিয়ে আনা যায় না।