ক্যাটেগরিঃ মতামত-বিশ্লেষণ

 

সবে হাইস্কুলে যাওয়া শুরু করেছি। ঘটনাটি তখনের।
আমাদের গ্রামের একজন যুবক বয়স ২৫/২৬ এর কোটায়। সবাই তাকে খারাপ হিসেবেই জানে। খারাপ মানে চুরির অভ্যাস আছে, বখাটে ধরনের। তখন অবশ্য থানা পুলিশ করতে দেখিনি। গ্রামের মুরব্বিরাই শাস্তি, ধমকানো ইত্যাদীর মাধ্যমে চেষ্ঠা করতো তাকে ওসব থেকে বিরত রাখতে।

একদিন স্কুলে যাওয়ার সময় শুনলাম, ওই বখাটেটি গ্রামের এক মেয়ের কানের দুল ছিনতাই করতে গিয়ে ধরা পরেছে। গ্রামের মেয়েটি পুকুরে এসেছিল, বখাটেটি সুযোগ বুঝে কানে থাকা দুল ঝাপটা দিয়ে নিতে গিয়ে মেয়েটির কান কেটে গিয়েছে। মেয়েটির চিৎকারে পাড়ার লোকজন বের হয়ে তাকে ধরে ফেলে। এবারও অতীতের মতো গ্রামের মুরব্বিরা বিচার করবে। ওই বিচার দেখতে অবশ্য আমরা যাইনি। তবে ইচ্ছে ছিল। তো যে প্রাইমারী স্কুলে আমরা পড়তাম সে প্রাইমারী স্কুলের মাঠে বিচার হবে। বিচারের শাস্তি হয়েছে, যেহেতু এবার সে মেয়েদের দুল ছিনতাই করেছে সেহেতু তাকে এবার মেয়েদের পোষাক পরিয়ে সারা গ্রামে হাঁটানো হবে। পরদিন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সেই শাস্তি কার্যকর করা হলো। আমাদের হাইস্কুলের সামনেও আনা হয়েছিল। শাস্তি শেষ।

পরের দিন সকালে শুনলাম, সেই বখাটেটি আত্মহত্যা করেছে। কারণ মেয়েদের পোষাক পরিয়ে হাঁটানোর মতো অপমাণ সে সহ্য করতে পারেনি।

ঘটনাটি মনে পড়েছে, সাম্প্রতিক কালে আমাদের দেশের মেয়েদের পোষাক সিলেকশানের কথা চিন্তা করে। নাটক, সিনেমা, বিজ্ঞাপন, অফিস, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ইত্যাদীতে এখন মেয়েদেরকে দেখানো হচ্ছে পুরুষের পোষাক পরিহিতা অবস্থায় এবং বাস্তবেও এধরনের পোষাক পরার হার অনেক বেড়ে গেছে।

আমার বুঝে আসেনা মেয়েরা পুরুষের পোষাক কেন পরতে চায়! এটাকেও কি সমঅধিকারের সমার্থক ভাবা হচ্ছে? অথচ একজন বখাটে যুবক, তাকেও যখন মেয়েদের পোষাক পরিয়ে হাঁটানো হলো তখন সে অপমানে আত্মহত্যা করেছে। পুরুষরা কি কখনো মেয়েদের পোষাক পরে রাস্তায় বের হয়, অফিসে যায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আসে? পুরুষরা কি এটাকে সম্মানের মনে করে? তাহলে আমরা মেয়েরা কেন পুরুষদের পোষাক পরাকে আধুনিকতা হিসেবে নিয়েছি? আমাদের জন্মই কি হয়েছে শুধু পুরুষকে follow করার জন্য? পুরুষের পোষাক পরার কারণে আমাদের সম্মান কি বেড়েছে?

তবে আমার কথার উদ্দেশ্য মেয়েদেরকে বোরকা পরতে বলা নয়। শালীন পোষাকের দিকে দৃষ্টি আকর্ষন করা। তিনটি ছবির মধ্যে নিচের ছবিতে বোরকা পড়েনি এব এসবকে মেয়েদের আধুনিক পোষাক বলা যায়, তবে শালীনভাবে।