ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা


ছবি : কিশোর পারেখ

আমার প্রিয় একজন ভারতীয় ফটোগ্রাফার কিশোর পারেখ (১৯৩০-১৯৮২)। ১৯ বছর বয়সে প্রথম হাতে ক্যামেরা তুলে নেন | সাউথআর্ন ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র ও স্থিরচিত্রের ওপর ডিগ্রী লাভের পর ফটো সাংবাদিকতা শুরু করেন | ১৯৬১ থেকে ১৯৬৭ পর্যন্ত তিনি হিন্দুস্থান টাইমস এ কাজ করেছেন। অনেকেই মনে করেন ভারতের ফটো সাংবাদিকতার পরিবর্তনটা তার হাত ধরেই এসেছিল। তার কাজের একটা বড় একটা অংশ জুড়ে ছিল ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ।

111

ছবি : কিশোর পারেখ : পুরান ঢাকায় তোলা, হানাদার বাহিনীর ফেলে যাওয়া বুট থেকে অনুমান করা যায়, মুক্তি বাহিনীর ধাওয়া খেয়ে কোনঠাসা হয়ে পড়েছিল তারা।

তার স্ত্রী ( সরোজ পারেখ ) তার স্মৃতিতে উল্লেখ করেছেন :” মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে তারা হংকং এ অবস্থান করছিলেন | তিনি সমুদ্র সৈকতে ছবি আকতে পছন্দ করতেন | এমতবস্থায় সিদ্ধান্ত নিলেন ভারত হয়ে বাংলাদেশে যেয়ে পুরো যুদ্ধটাকে ছবির মাধ্যমে কভার করা | ঢাকায় অবস্থানকালীন সময় তার পক্ষে একজন সিভিলিয়ান হয়ে সরাসরি যুদ্ধ ক্ষেত্রের ছবি তোলা খুব কঠিন ব্যাপার ছিল | তাই তিনি পাকিস্তান আর্মির পোশাক যোগার করে ঐতিহাসিক কাজগুলো সাহসিকতার সাথে সম্পন্ন করেছিলেন | এর জন্য তিনি ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে ধরাও পড়েন | পড়ে অবশ্য বোঝাতে সক্ষম হন, তিনি ভারতীয় নাগরিক এবং ফটো সাংবাদিক | কোনো চাকুরিগত বাধ্যবাধকতা নয়, আর্থিক কোনো লাভ নয়, স্রেফ একটি যুদ্ধকে ইতিহাসের অংশ করে রাখার জন্যেই চলে আসেন যুদ্ধ আক্রান্ত এ দেশে | “

111

ছবি : কিশোর পারেখ : হানাদার বাহিনীর অত্যাচারে নিহত এক কিশোর তার নিজের রক্তের মাঝে শুয়ে আছে।

দুঃখজনক অথচ সত্যি হলো জীবিত থাকতে কখনোই এ ফটোগ্রাফারকে কৃতজ্ঞতা জানাইনি, স্নরণ করিনি তার মৃতুর পর | যিনি আমাদের আগামী প্রজন্মের জন্য কিছু জীবন্ত ঐতিহাসিক দলিল ছবি আকারে রেখে গেছেন | স্নরণ করি তাকে শ্রদ্ধার সাথে |

111

তার উল্লেখযোগ্য কর্ম : Bangladesh – A Brutal Birth.