ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

 

দেশ হিসাবে ভারত এগিয়ে যাচ্ছে।কিন্তু সমাজের যেখানে দরিদ্র,উপজাতীয়,প্রান্তিক মানুষদের বসবাস সভ্যতা-উন্নয়ন সেখানে যেন অভিশাপ হয়ে দেখা দেয়।সভ্যতা আর উন্নয়নের যারা প্রতিনিধি হয়ে সেখানে হাজির হয়, তারা আসে এসব প্রান্তিক মানুষদের জন্য মৃত্যুফাঁদ হয়ে।এসব কর্পোরেট যখন আসে সম্পদের উপর দখল নিতে, তখন সেখানকার আদিবাসীরা প্রতিহত করার জন্য এগিয়ে আসে নিজেদের অস্তিত্বকে টিকিয়ে রাখতে।এই আদিবাসীরাই মাওবাদী। এদের এই লড়াই বেঁচে থাকার লড়াই।শোষকের বিরুদ্ধে শোষিতের লড়াই।এসব অঞ্চলগুলোতে সব চাইতে বেশী নির্যাতিত হয় শিশু আর নারীরা। তাই সসস্ত্র প্রতিরোধে এগিয়ে আসে নারী ও শিশুরাও। এক লক্ষ এর কাছাকাছি প্রশিক্ষিত মাওবাদী নারী সৈন্য রয়েছে বলে শোনা যায় যার অধিকাংশই বয়সে শিশু।আদিবাসি সহ আরো রয়েছে দারিদ্র সীমার নীচে বসবাসকারী ৫০ কোটির মত এক বিরাট জনসংখ্যা।ভগবান কর্তৃক ভুলে যাওয়া এইসব মানুষরা সভ্যতার উন্নয়নের ছিটেফোঁটা তেমন একটা পায়না।ভারত তার উন্নয়নের যে জাহাজ নিয়ে তীরে ভিড়ছে তার টিকেট দেয়া হচ্ছে survival of the fittest নামক ক্যাপিটালিজমের এই নিষ্ঠুর নীতিতে।শক্ত,সামর্থ মানুষগুলি সেখানে উঠে দিব্যি ফুর্তি করছে আর কিনারায় দাঁড়িয়ে নারী,শিশু,দুর্বল,পঙ্গু মানুষগুলি আর্তনাদ আর চিৎকার করে আকাশ ভারী করে তুলছে!আবার সীমান্ত রক্ষার নামে প্রতিবেশী দেশের দরিদ্র ও অসহায় মানুষদের মেক্সিকো-আমেরিকার সীমান্তের আদলে নিষ্ঠুরভাবে হত্যাও করছে।একদিকে বড় বড় শহরগুলিতে ম্যাকদোনাল্ডস,পিতসা হাট,ঝকঝকে সাইনবোর্ড,বিলবোর্ড,দামী দামী ব্র্যান্ডের গাড়ী কর্পোরেটদের উন্নয়নের কত কি নিদর্শন!আর একদিকে ক্ষুধা, দারিদ্রতা,হাহাকার।বিশাল সামরিক বাজেট থাকলেও নেই দারিদ্র বিমোচনে খুব বেশী উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ।পশ্চিমের আদলে আধুনিক ভারত গড়ে তুলতে চাইছে। কিন্তু এটা কি সম্ভব? দর্শনগতভাবে ভারতীয়রা পশ্চিমাদের চাইতে আলাদা।ওরা ভারতীয়দের চাইতে অনেক বেশি স্বাতন্ত্রিক,আত্মকেন্দ্রিক।আর ভারতীয়রা ওদের চাইতে ওনেক বেশী গোষ্ঠীগত ও সামাজিক।যে কারনেই হাজার বছর ধরে আলেকজান্ডার,পাঠান, মোগল,ইংরেজ ইত্যাদিসহ সব হানাদারদের শাসন-শোষণে হারিয়ে যায়নি ভারতীয়দের সংস্কৃতি,দর্শণ আর জীবনবোধ। প্রায় ১৬০০ সালের দিকে ইউরোপীয়রা যখন আমেরিকা ও ভারত আবিষ্কার করলো তারপর ৪০০ বছর পেরিয়ে গেলো।বিভিন্ন নিধন কার্য শেষে আমেরিকার আদিবাসীদের সংখ্যা এখন মাত্র কয়েক মিলিয়ন এ দাড়িয়েছে।কিন্তু ভারতে তা হয়নি।ভারতের জনসংখ্যার দিকে তাকালেই তা বোঝা যায়।একটা বিশাল দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উপর নিষ্ঠুর,অসম,অবহেলামূলক আচরন অব্যাহত রেখে উন্নত আধুনিক ভারত গড়ে তোলা কাল্পনিক একটা ব্যাপার।ভারতকে তার নিজের দেশের প্রান্তিক,দরিদ্র,অবহেলিত আর বাংলাদেশ সহ সীমান্তের সকল মানুষের প্রতি মানবিক হতে হবে।তবেই আধুনিক,উন্নত ও শক্তিশালী ভারতের সভ্যতা-উন্নয়ন তার সার্থকতা খুঁজে পাবে।