ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

যুদ্ধাপরাধিদের বিচারের রায় দেয়া শুরু হয়েছে , নিঃসন্দেহে তা খুশির অনুভুতি কিন্তু আমি খুশি হতে পারিনি!!! বিজয়ের আনন্দে আনন্দিত হতে পারিনি… আমার মনে হয়েছে যুদ্ধাপরাধিদের বিচার কাজ নিয়ে একটা এক্সপেরিমেন্ট চলছে … টেষ্ট টেলিকাস্ট চলছে … সবথেকে বড় ঘৃণ্য রাজনীতি চলছে এই বিচার কাজ নিয়ে …!!! শহীদের রক্ত , বীরাঙ্গনার ত্যাগ ও কষ্ট , লাখো মুক্তিযোদ্ধার চেতনার সাথে রাজনীতি নামক দাঁতাল নেকড়ের জঘন্য কুৎসিত প্রহসন- পরিহাস … পাকিস্তানি হানাদার বাংলাদেশের থেকে অবশিষ্ট যাকিছু নিয়ে যেতে পারেনি, স্বদেশী হানাদার রাজনীতি তা কড়ায় গন্ডায় উসুল করে নিচ্ছে …

বাচ্চু রাজাকারের ফাঁসির রায় হয়েছে কিন্তু তা কার্যকর কবে হবে ? বাচ্চু রাজাকার কই? ফুঁটা কলসি আসলেই বাজে বেশি … সরকার কি আসলেই জানে না যে বাচ্চু রাজাকার এখন কোথায়??? কিভাবে প্রশাসন তথা পুলিশ তাকে পালিয়ে যেতে দিয়েছে ???

মুজাহিদ , সাইদী, নিজামী, গোলাম আযম , সা কা চৌধুরী যারা জেলে আছে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে তাদের বিচারের রায় কেন হয় না? তাদের বিচারের রায় এখনি কার্যকর করা যায় বলেই কি তাদের রায় হবে আগামী নির্বাচনের পর? এ কি প্রহসন ???!!!

বাংলাদেশীদের কে বঙ্গবন্ধু কন্যা বলবেন যে, শুধুমাত্র যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিশ্চিত করতেই তাদের পরবর্তী নির্বাচনে জয়ী হয়ে আসা প্রয়োজন নতুবা পরাশক্তি সব বানচাল করে দিবে আর বীর বাঙ্গালী আবারো নাকের সামনের ঝুলানো মূলা ধরতে ঝাঁপিয়ে পড়বে …!!!

কোথায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা??? কোথায় গণতান্ত্রিক সমাজতন্ত্র??? কোথায় সুশাসন??? কোথায় ধর্ম নিরপেক্ষতা??? কোথায় জাতীয়তাবাদ??? কোথায় সকল নাগরিকের জন্য আইনের শাসন ??? কোথায় মৌলিক মানবাধিকার ??? কোথায় রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সাম্য??? এবং কোথায় স্বাধীনতা ও সুবিচার ???

সরকারের প্রহসন কবে বন্ধ হবে জানি না তবে প্রজন্ম যে কখনো আর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হতে পারবে না তা নিশ্চিত বুঝতে পারছি … ইতিহাস যে সহস্র বছরের ধুলার পাহাড়ের নীচে সমাহত হতে চলেছে তা স্পষ্ট দৃষ্টি সীমাকে লঙ্ঘন করতে পারছে না …

তারপর ও বীর বাঙ্গালী ঘরে ঘরে জন্ম নিবে এবং যুগ যুগ ধরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা কে মনে ও কর্মে উজ্জীবিত, অম্লান রাখবে সেই স্বপ্ন ই দেখি …