ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

* নির্দলীয় কিবা এক দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা না করে অতীত অভিজ্ঞতার প্রেক্ষাপটে বর্তমান বাস্তবাবস্থা ভিত্তিক সকল দলের সংশয়-সংঘাত দূরীকরণে বহুদলীয় (প্রতিদল সমর্থিত নির্বাচিত অনির্বাচিত প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী গোপাল স্বরূপ) ও নির্দলীয় (সম্মানিত কোন প্রতিষ্ঠানের প্রধান ব্যক্তি) প্রতিনিধি সমন্বিত প্রশ্নাতীত একটি অন্তবর্তী কালীন সরকার ব্যবস্থা করা সমীচিন বলে প্রতীয়মান।

অন্তবর্তী কালীন গোল টেবিল সরকারের রূপরেখা নিম্নরূপ হতে পারে-
১. নির্বাচনকালীন সময় অবশ্যই নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও নিরাপত্তা বাহিনী নির্বাচন কমিশনের ইচ্ছের প্রয়োজনীয় কার্য পালনে অগ্রগামী হিসেবে অবশ্যই বাধিত থাকিবেন।

২. প্রধান উপদেষ্টার প্রয়োজন নেই, একজন সমন্বয়কসহ মোট সদস্য সংখ্যা ১০ জন এবং মেয়াদ কাল অবশ্যই ২ মাস বাঞ্চনীয়।

৩. মন্ত্রণালয় বন্টন নিঃ®প্র্রয়োজন।সমন্বয়ক শুধু ক্ষমতাহীন সমন্বয়ের ভূমিকায়ঃ সমন্বয়ের প্রয়োজনে নিজস্ব মতামত উপস্থাপন সহ অবশ্যই সাধারণ সদস্যদের গণতান্ত্রিক প্রকাশ্য মতামতের সংখ্যা গরিষ্ঠের প্রাধান্যের ভিত্তিতে প্রতিদিনের সাধারণ কার্যাবলী প্রতিদিন সম্পন্ন করবেন।

৪.রূপরেখাঃ দল নির্বাচিত সদস্যঃ- গত নির্বাচনের প্রথম স্থানীয় দল-৩জন, দ্বিতীয় স্থানীয় দল-৩জন, তৃতীয় স্থানীয় দল-১জন, চতুর্থ স্থানীয় দল-১ জন, পঞ্চম স্থানীয় দল-১জন।

৫. নির্দলীয় সমন্বয়ক ঃ (বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর/ প্রধান বিচার পতি/ জাতীয় উপাচার্য/ জাতীয় প্রকৌশলী/ সুশীল সমাজ প্রতিনিধি/ নারী ব্যক্তিত্ব)-১জন।

৬. সমন্বয়ক নির্বাচনঃ সরকার ও বিরোধী দল উভয়ে উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানের বর্তমান ও অবশর প্রাপ্ত ব্যক্তি বর্গের তালিকা হতে ২ জন করে বিশিষ্ট সম্মানিত ব্যক্তির নামের তালিকা প্রস্তাব করবে। উক্ত ৪ জন ব্যক্তি হতে দল সমর্থিত প্রতিনিধিগণ প্রকাশ্য ভোটের ভিত্তিতে একজন সমম্বয়ক নির্বাচন করবেন।

৭.ক্ষমতা হবে ভারসাম্যযুক্ত আশঙ্কামুক্তঃ রাষ্টপতি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণায়ের পূর্ণ দায়িত্ব পালনসহ গোল টেবিল সরকার কর্তক সুপারিশকৃত নির্বাচন কমিশনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপত্র সহ সকল মন্ত্রণালয়ের কর্মকান্ডে (শুধু) অনুমোদন করবেন, বাস্তবায়নে থাকবেন সংশিষ্ট সচিবালয় এবং সকল কার্যের মূল ফলোআপসহ ভাগ্য নির্ধারণী সুপারিশ করবেন গোল টেবিল সরকার।

উল্লেখ্য যে, সকল সদস্যগণই সাধারণ নির্বাচন কালীন সাধারণ নির্বাচনে অংশগ্রহন হতে অবশ্যই বিরত থাকবেন। অতঃপর দলীয় সদস্যগণ নির্বাচন পরবর্তী সরকারে যার যার মত অংশগ্রহন করতে ও পারবেন।
***সরকার ও বিরোধী দলীয় ‘নির্বাচিত অনির্বাচিত দলীয় নির্দলীয় সদস্য সংখ্যা সহ সরকার প্রধান অপ্রধান’ সকল ইস্যকৃত দাবীর সুষ্ঠ ও সুন্দর নিরপেক্ষ সমাধানে জাতীর ক্রান্তিকালীন প্রয়োজনে জাতীর নিকট আমার উপস্থাপিত ধারণামাত্র।***
আপনাদের প্রতি মন্তব্য কামনায়-
আসুন সংশয় সংঘাত পরিহার করি
সুখী সমৃদ্ধ দেশ গঠনে যোগাল ধরি;
নির্দলীয় দলীয় তত্ত্বাবধায়ক বর্জন করি
ক্ষমতা ভারসাম্যযুক্ত আশঙ্কামুক্ত করি।।