ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের (০৩ এপ্রিল ২০১২) একটি খবরে বলা হয়েছে, সাতক্ষীরায় হযরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে কটাক্ষ করার কথিত একটি ঘটনাকে ঘিরে হিন্দুদের বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনার পরদিন পুলিশ সুপার (এসপি) হাবিবুর রহমান খান ও কালীগঞ্জ থানার ওসি ফরিদউদ্দিনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

খবরটি পড়ে সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। কারণ দ্রুত পদক্ষেপ না নিলে তা সরকারের জন্য অস্বস্তির বিষয় হয়ে দাঁড়াতো।

এক বছরও হয়নি এসপি হাবিব সাতক্ষীরা জেলায় দায়িত্ব পেয়েছেন। অথচ এরই মধ্যে নানা কারণে সমালোচিত হয়ে উঠেন তিনি। এমন কোনো দল নেই যাদের সঙ্গে এসপি সাহেবের সখ্যতা গড়ে উঠেনি। আর এই সখ্যতার পিছনে ছিল অন্য কারণ। যা খতিয়ে দেখতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং আইজিপি মহোদয়কে অনুরোধ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে হাবিব সাহেবের অতীত জীবনের (ছাত্র এবং পারিবারিক) রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতার দিকগুলো বিবেচনায় নেওয়া উচিত বলে মনে করছি।

যারা নিজের চাকরি পাকাপোক্ত এবং বিভিন্ন সুবিধা আদায় করতে নানা ধরনের টালবাহানার আশ্রয় নেয় সেইসব কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সরকারের সজাগ দৃষ্টি কামনা করছি।