ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

প্রিয় দেশবাসী,
গত ১২ এপ্রিল ২০১২ তারিখে সুরঞ্জিত পদত্যাগ করছেন এমন একটি খবর আপনাদের জানিয়েছিলাম। আজ ১৬ এপ্রিল গণতন্ত্রের মুখোশধারী কালো বিড়ালের লেবাসে এই সমাজে বেড়ে উঠা সুযোগ সন্ধানী রাজনীতিজীবী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত অবশেষে অর্থ কেলেঙ্কারির দায় কাঁধে নিয়ে পদত্যাগে বাধ্য হলেন। এমন পেশাদার রাজনীতিজীবী এই সমাজে জন্ম নিচ্ছে এখনো। এদের থেকে সাবধান।

এরা কতটা ভয়ঙ্কর ভেবে দেখুন
প্রধানমন্ত্রীর কাছের কয়েকজন সুরঞ্জিতকে পদত্যাগ করার পরামর্শ দিলে প্রথমে রাজি হন। কিন্তু তলে তলে প্রধানমন্ত্রীকে ম্যানেজ করার অপচেষ্টাও করেন। কতটা নির্লজ্জ হলে পদ আঁকড়ে থাকার সুপ্ত বাসনা মনের মধ্যে থাকে। একদিন আগে ১১ এপ্রিল অপর রাজনীতিজীবী বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদের বক্তব্যে পরিপ্রেক্ষিতে সুরঞ্জিত বলেছিল, বিরোধী দলের কথায় কেনো পদত্যাগ করবো?

এ যেন মায়ের আদুরে ছেলের কথা! আরে সারাদেশবাসী জানে কতটা দুর্নীতিগ্রস্ত হয়ে পড়লে মন্ত্রীর এপিএস এর গাড়ী থেকে টাকা উদ্ধার হয়। আর সুরঞ্জিত বাবু কাকের মতো চোখ বন্ধ করে বক বক করেই গেছেন গত চারদিন ধরে।

অবশেষে জাতির কলঙ্ক সেনগুপ্ত প্রধানমন্ত্রীর ধমকে খেয়ে বাধ্য হয়ে পদত্যাগ করে পাপমোচন করেছেন বটে! তবে সুযোগ্য পুত্র সৌমেন গুপ্তের টেলিকমের লাইসেন্স পাওয়ার পাপ কিভাবে মোচন হবে সেটাই এখন দেখার বিষয়!


পাঠকদের সুবিধার্থে আগের পোস্টটি দেখার জন্য এখানে লিংক দেওয়া হলো।