ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

“বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ইংরেজি বিভাগের ষষ্ঠ সেমিস্টারে আল-মামুনকে ছাত্রলীগ কর্মী কানন, পাভেল ও ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহেল হাতুরি দিয়ে মাথায় পেটায়। এতে গুরুতর আহত হয় মামুন।”

(তথ্য সূত্র)

আমি আজ প্রতিবাদের ভাষা হারিয়ে ফেলছি। আমরা কী মধ্যযুগের বর্বরতার আছি? এটা কী ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশ? আমি শংকিত।

বিশ্ববিদ্যালয়কে জানতাম জ্ঞানের ভান্ডার হিসেবে। নিজেও সেই চর্চা করে এসেছি। এখন দেখছি এখানে মধ্যযুগীয় বর্বরতা ছাড়া আর কিছুই নেই।

ক্ষমতার কাছে কী এরা মা-বাবা ভাই-বোন সবার কথা ভুলে গেল? ক্ষমতার লোভে কী নিজের স্বজাতি ভাইকে এভাবে মারবে? হায়রে কী বিচিত্র সেলুকাস? কী লাভ এই পাঠশালার যেখানে এমন নরপশুদের বর্বরতার শিক্ষা দেওয়া হয়? তারপর আমাদের মাথাওয়ালা ছাত্র রাজনীতির পক্ষে সাফাই গাইবেন????????????? ধন্য বাংলাদেশ ধন্য …………..