ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

 

পাঁচজন নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ীকে নিয়া বড়ই পেরেশানীতে আছি ঈদের পর থিকাই। এরা সবতে মিল্লা আমার মনের শান্তি ছেরাবেরা কইরা দিল। কিছু বাতচিতের সুযোগ নিয়া যদি এট্টু শান্তি পাই এই আশায় শুরু করলাম একজন একজন কইরা-

নম্বর এক – বারাক ওবামা

ইনি সিরিয়ার অসভ্য আসাদেরে হুমকি ধামকি দিতাছেন জনগনরে কেমিকেল বোমা মারলে ইনিও মেরিন লেলাইয়া দিবেন। কী সাংঘাতিক কথা! ইরান, চীন, রাশিয়া যদি এর মধ্যে আইসা পড়ে বন্দুক-কার্তুজ নিয়া, বৃটেন, ফ্রান্স, ইসরায়েল, সৌদি, তুরস্কও আইসা পড়বো। তিন নম্বর মহাযুদ্ধর আর বাকী থাকলো কী? শান্তি নাই!!

দুই নম্বর – অং সান সু কী

ওয়াশিংটনের হিউম্যান রাইটস ওয়াচ আবার রোহিঙ্গা নিয়া বাংলাদেশের উপ্রে গরম, গরম হওনেরই কথা, তয় বার্মার উপ্রে গরমখানা কেমুন জানি এট্টু কম কম লাগে। ঐ দেশেও একজন নোবেল বিজয়ী সু কী আছেন,তার মুখ পুরাই তালাবন্ধ। রোহিঙ্গার উপ্রে এত অত্যাচার তার দেশে, উনি আছেন ২০১৫ সালের ভোটে জিতার কলাকৌশল নিয়া (সূত্র ১ | সূত্র ২)। বার্মীজগুলা এমনই অসভ্য যে সুরত মঙ্গোলয়েড আর ধর্ম বৌদ্ধ না হইলে কোন বেডাই তাগো দেশের নাগরিক না, রোহিঙ্গাগো নাগরিক কইয়া সু কী এই অসভ্যদের ভোট হারাইতে রাজি না। এই অশান্তির মধ্যে আইজকা তবু এট্টু শান্তি পাইলাম আরেক শান্তি পুরস্কার বিজয়ী দালাই লামা সু কী-রে চিঠি লেখছে এই নিয়া

তিন আর চার নম্বর – ড. ইউনূস আর গ্রামীন ব্যাঙ্ক

বড় অশান্তি এই দুই বিজয়ীরে নিয়া। কোন দুঃখে যে এই মরার দেশে জন্মাইলো, তার উপ্রে আবার নোবেল পাইয়া গেলো! এই নিয়া কোন সূত্র দেওনের দরকার নাই, কী ঘইটা গেলো বেবাকতে জানেন। সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান যেনতেন সাংবাদিক না, ব্যাপক জানেন; উনি স্পষ্ট কইরা কইলেন গ্রামীনের এমডি নিয়োগের অধ্যাদেশ সংবিধানের পরিপন্থি। কারণটা হইলো যে নিয়ম দেশের সংসদে পাশের বৈধতা নাই, সেই নিয়ম অধ্যাদেশ দিয়া জারী করনের বৈধতাও নাই। সংসদ বা রাষ্ট্রপতি একজনের সম্পত্তি যেমন আইন কইরা আরেক জনেরে দিতে পারে না, সম্পত্তির ৯৭ ভাগ মালিকের ক্ষমতাও ৩ ভাগেরে দিয়া দিতে পারে না; মিজান খান কইলেন এই জন্যই এটা ’কালাকানুন’; আর দিনখান ’কালাদিন’ (কালো দিবস)। ব্যাপক অশান্তি পাইতেছি এই তুঘলকি ঘটনা নিয়া।

আর পাঁচ নম্বর বিজয়ী কেডা? তাতো আমিও জানিনা। সরকারের/সরকারী দলের এক চেলায় কইলো কোন দেশে নাকি কোন এক নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী চুরির জন্য জেল খাটছিলো। এই গল্প চালু করা গেলে ইউনূস সাহেবরেও চোরের মত বানাইতে সুবিধা এই চেলার। গুগল মামারে বহু বিরক্ত কইরাও এমন কোন বিজয়ীর নাম বাইর করতে পারলাম না। এই নিয়া আরেক অশান্তি! কেউ বাইর করতে পারলে এট্টু কইয়েন তো!