ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

বাংলাদেশের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, বাংলাদেশের আকাশে কালো ছায়া পড়েছে। দুঃখের বিষয় তিনি ছায়ার ব্যাপারটা ব্যাখ্য করেনি। কোন সে ছায়া একটু বলে দিলে ভাল হত না। তিনি সত্যি কথাই বলেছেন। এদেশের আকাশে আসলে ভারতীয় ছায়া পড়েছে।আর তাই বাংলাদেশের সব আলো নিভে যাচ্ছে।আমরা ক্লান্ত হয়ে পড়েছি, দেশ চালাতে চালাতে বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেতারা আজ ভারাক্রান্ত। তাই ভারতরূপী বটগাছের নিচে আশ্রয় নিয়েছেন।

অর্থমন্ত্রী বলেছেন, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা দেশের উন্নয়নের প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাহলে আমাদের প্রশ্ন হল এ অস্থিতিশীল অবস্থা যারা তৈরী করেছেন তাদের মধ্যে কি তিনি নন? অবশ্যই তিনিও তাদের একজন। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারই এ অস্থিতিশীলতা তৈরী করেছে। আর তাই যদি হয় তবে তারা দেশের উন্নয়ন চাননি বলেই এ পরিস্থির তৈরী করেছেন। হ্যাঁ মানছি বিরোধী দলও এ অস্থিতিশীল পরিস্থিতির জন্য দায়ী। কিন্তু রাজনীতির এ অবস্থা তো বিগত কয়েক মাস যাবৎ। তবে সরকার ক্ষমতায় আসছে আড়াই বছর যাবৎ। তাহলে বিরোধী দল এতদিন অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি না করে এখন করেছেন কেন? কারণ এখন তারা বাধ্য হয়েছেন আমি বলব। সরকার তাদের যে ইশতেহার দিয়েছিল তা পালন করেনি করছেনা। রাষ্ট্রীয় ক্ষমা থেকে শুরু করে নিজেদের স্বার্থের জন্য এমন কিছু নেই যা সরকার করছে না।

বর্তমানে ভারতের সাথে সরকার যে সখ্যতা গড়ে তুলেতে চাচ্ছে তা কখনই আমাদের জন্য সুফল বয়ে আনবে না বলে অনেকে মনে করেন। ভারত সবসময় তাদের স্বার্থ দেখেছে। তারা আমাদের সাথে যে চুক্তিগুলো করেছে বা করছে তার বেশিরভাগই তাদের অনুকূলে। মনে হচ্ছে সরকার ভারতের সাথে অঙ্গীকার বদ্ধ চিল।আজ তা পূরণ করে দিচ্ছে। বর্তমানে ট্রানজিট চুক্তি নিয়ে যে বলাবলি চলছে তা আসলেই বাংলাদেশের জন্য কোন সুফল বয়ে আনবে বলে মনে হয়না। ভারতীয় অনেক অভ্যন্তরীন জটিলতা বাংলাদেশের সাথে জড়িয়ে যাবে বলে আমার মনে হয়।

সবচেয়ে বড় কথা যদি আমার ইচ্ছে থাকে দেশের জন্য দেশের মানুষের জন্য কিছু করার তবে অবশ্যই আমি আমার আমার দেশে ও দেশের মানুষের জন্য কোনটা ভাল কোনটা মন্দ তা আমি বুঝব। কিন্তু আমার মানসিকতা যদি স্বার্থলোভী হয়ে থাকে তবে আমার দ্বারা ভাল কিছু দেশ কখনই আশা করে না।

তাই ও হে বাংলাদেশ পরিচালনাকারী শাসক গোষ্ঠী নিজেরা নিজেদের মানসিকতার পরিবর্তন করুন। দেশের মানুষের জন্য কিছু করুন। আর ভারতীয় ছায়া থেকে বেরিয়ে আসুন।