ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

যুদ্ধপরাধীদের বিচার যতো দ্রুত সম্ভব শেষ করা উচিত । একটি মাত্র ট্রাইব্যুনাল দিয়ে এ বিচার প্রক্রিয়া শেষ হতে দীর্ঘ দিন সময় লাগার কথা । তাছাড়া আসামী পক্ষ স্বাক্ষীকে জেরা করার নামে অতিরিক্ত কাল ক্ষেপনের যে, কৌশল অবলম্ভন করছে তাতে করে চিহ্নিত যুদ্ধপরাধীদের বিচার সম্পূর্ণ হতে কয়েক বছর লেগে যাবার কথা । তার উপড় জামাতের কর্মীরা বিচার প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্থ করার জন্য একের পর সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত করে তুলতে পারে । সে মহরাও ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে । ১৯শে সেপ্টেম্বর এবং রাজধানীর দৈনিক বাংলা মোড় পুলিশের উপড় হামলা তারই প্রমান বহন করে ।

কিছুক্ষন পূর্বে জানতে পারলাম, পুলিশের খোয়া যাওয়া পিস্তলটি উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার বেলা একটার দিকে যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তার একটি ডাস্টবিন থেকে গুলিভর্তি অবস্থায় পিস্তলটি পাওয়া যায়।

প্রশ্ন হলো,আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা এতো দিন কি করেছে যে, তারা কেন এতো দিনেও হামলাকারী ও অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়া শিবির কর্মীদের গ্রেফতার করতে পারেনি । পারেনি অস্ত্রটি উদ্ধার করতে । পুলিশ,গোয়েন্দাদের এ ব্যথতা মেনে নেওয়া যায় না । জামাতের ঘাটিগুলোতে একের পর এক অভিযান পরিচালনা করা হলে, ফেলে রাখা অবস্থায় নয় পিস্তলসহ জামাতের কর্মীদেরও গ্রেফতার করা সম্ভব হতো বলে আমি মনে করি । সরকারকে ভাল করে খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে সর্ষের মধ্যে ভুত থাকার মতো – পুলিশের মধ্যেও জামাত রয়ে গেছে কিনা ? যে সাতজনকে ইতিমধ্যে গ্রফতার করা হয়েছে, তাদেরকে বিশেষ আদালত বসিয়ে কঠিন থেকে কঠিনতর শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক । জামাতের যে সব কর্মীরা সন্ত্রাসের সঙ্গে সরাসরি জড়িত রয়েছে তাদের গ্রেফতারের ব্যাপারে জনসাধারণকে সম্পিক্ত করা গেলে আরো ভাল ফলাফল আশা করা যায় ।

যুদ্ধাপরাধী বিচারের ব্যাপারে পুরো জাতি আজ একত্রিত হয়েছে , তাই সরকারের উচিত তাদের মেয়াদ কালেই এ বিচার প্রক্রিয়া শেষ করা । আর সে প্রয়োজনকে সামনে রেখে – কম করে হলেও আরো দশটি ট্রায়বুনাল গঠন করা হলে এ বিচার কার্য দ্রুত শেষ হবে বলে আশা করা যায় । একটি কথা মনে রাখতে হবে , জামাত শুধু দেশের অভ্যন্তরের পরিস্থিতিই খারাপ করছে না – বহি:বিশ্বেও বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নস্ট করে চলেছে । জামাতের এখন একটিই লক্ষ্য যে কোন উপায়ে এ বিচার কার্য বন্ধ করা অথবা বিলম্বিত করা ।

মন্তব্য লেখার পূর্বে এ ছবিটির দিকে তাকিয়ে একবার ভাবুন – এই সব শহীদদের আত্মা কখনও আমাদের ক্ষমা করবে না যদি না আমরা যুদ্ধপরাধীদের ফাসিতে ঝুলাতে না পারি ।