ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

দেশের সর্বত্র হাহাকার। আজ ভেজালেও ভেজাল, দুর্নীতিতেও দূর্নীতি। কেন? কার দোষ?

সীমিত কিছু লোক দেশের কথা ভাবে। সীমিত কিছু লোক গ্লাসের পানিতে ব্যাকটেরিয়া দেখে,আর সবাই রঙের কিছুটা তারতম্য দেখে। রক্ষক যেখানে ভক্ষক কি বলার আছে? কেউ খোঁজ রাখেনা ১,৪৭,৫৭০ বর্গ কি.মি. এর প্রতি ফূটে প্রতিদিন কত টাকার দূর্নীতি হয়,চুরি হয়,নষ্ট হয়।সবাই সবকিছু দেখে কিন্তু সবাই সবকিছু কি বোঝেনা ? এখনকার সব চেয়ে বড় ব্যবসা ডাক্তারি, পুলিশী,ওয়াজ মাহফিল করা। শুনেছি পলাশীর আম্র কাননে যখন ইংরেজদের সাথে নবাবের বাহিনীর যুদ্ধ চলছিল তখন পাশেই কৃষক চাষে ব্যস্ত,জেলে মাছ ধরাই ব্যস্ত তারা খোঁজ রাখার প্রয়োজন বোধ করেনি।আজও তাই। সীমিত সংখ্যক যারা খোঁজ রাখে, তারা সংখ্যায় কম থাকার কারনে তাদের দমন করতে খুব কম সময় লাগে।

মানুষের যখন কিছু হারিয়ে যায় তখন সে বোঝে, যেন কিছু হারিয়েছে।কিছু দিন ব্যথিত মনে থাকে তারপর সব ঠিক হয়ে যায়। ১৬ কোটি মানুষের মানসিকতা বদলাতে ১৬ কোটি দিন লাগবে ।তারপর যদি কোন নির্দিষ্ট বৈশিষ্ট্য প্রতিষ্ঠা পাই।এর আগ দিয়ে যারা বলবে তারা হারিয়ে যাবে।এখন সবাই গাবাই মাছ ধরতে ব্যস্ত।