ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

আমি সব সময়ই গর্বের সাথেই বলে থাকি যে- আমি ডেসটিনিতে কাজ করি। আমি ডেসটিনির ডিস্ট্রিবিউটর! গত কয়েক মাস ধরে ডেসটিনিকে নিয়ে যে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে তাতে অধিকাংশ ডিস্ট্রিবিউটর আর্থিক ও মানসিক ভাবে কিছুটা বিপর্যস্থ। আর এই সুযোগে আমাদের কিছু “শুভাকাংখী” প্রতিনিয়ত আমাদের কটাক্ষ ও নিরুত্সাহিত করতে ব্যস্ত! আমি পারতপক্ষে এইসব “শুভাকাংখী” দের আক্রমন করি না। চেষ্টা করি তাদেরকে যথা সম্ভব যুক্তি দিয়ে বোঝাতে।

“আমরা” স্বপ্ন দেখি আমাদের বাড়ি হবে, গাড়ি হবে, বাবা-মাকে হজ্জ্বে পাঠাবো, সমাজের সেবা করবো, মানব কল্যাণে অবদান রাখবো… আরো কত কি! “আপনারা” হেসে বলেন- “পাগলে কি না বলে!”

আপনাদের কাছে আমার প্রশ্ন- স্বপ্ন যখন দেখেছি, কোন না কোন দিন তা বাস্তবায়ন হবেই। কারণ, আমাদের গুরু রফিকুল আমিন আমাদের শিখিয়েছে- স্বপ্ন সেটা নয় যেটা আপনি ঘুমিয়ে দেখেন। স্বপ্ন সেটা- যেটা আপনাকে ঘুমাতে দেয় না! “আজাদ প্রোডাক্টস” এর মালিক আজাদ সাহেব -এর মত বলতে হয়- “হেরে যাব বলে তো আর স্বপ্ন দেখিনি!” কিন্তু এরকম “ইচ্ছা” তো নিশ্চয়ই আপনারও করে। আপনি কবে বাড়ি-গাড়ির মালিক হচ্ছেন? জীবনে তো অনেকবার “আমার জীবনের লক্ষ্য” রচনায় অনেক বড় বড় লক্ষ্যের কথা লিখেছেন। কিন্তু জীবনে স্বপ্নেও কোনদিন
ভেবেছেন সত্যি সেই লক্ষ্যে কবে পৌছবেন? কবে হবেন ডাক্তার, কবে খুলবেন “দাতব্য চিকিতসালয়” আর কবে করবেন সেই “সমাজ সেবা”?

প্লীজ, নিজের অক্ষমতাকে কোন অজুহাত কিংবা অমুক-তমুকের দোহাই দিয়ে ঢাকবেন না! আমরা একটা সত্যিকারের স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখি। আপনি কি দেখেন? জানি বলবেন- আগে করে দেখাও! ভাই, আল্লাহ তো বলেছেন, তিনি তার সকল বান্দার মনের ইচ্ছা পূরণ করেন। আর হাদিসে আছে- যখন ৪০জন মানুষ আল্লাহর কাছে কোন কিছু চায়, আল্লাহ তা কবুল করে নেন! আমরা ৪০ জন নয় ৪০+৫=৪৫ লাখ (জানি,এই সংখ্যাটাও আপনারা মানেন না! আচ্ছা লাখ বাদ দিলাম, আমার মত অন্তত ৪০ হাজার “ডেসটিনির পাগল” যে আছে এটা তো বিশ্বাস করেন?) লোক প্রতিক্ষণ প্রতি ওয়াক্তে আল্লাহর কাছে সেই বাংলাদেশের জন্য প্রার্থনা করি। আপনার কি মনে হয়- কোরান-হাদিস মিথ্যা হয়ে যাবে, তবু আমাদের দোয়া আল্লাহ শুনবেন না? বলবেন- শুধু মুখে বললেই হবে? আর আমাদের “কাজ”ও আবার আপনাদের চোখে “বাটপারি”! তবুও অন্তত মুখে তো বলি! আচ্ছা, আমরা তো “ডেসটিনি”! বোকা-পাগল-স্বার্থপর-চোর-বাটপার! আপনি তো অনেক ভাল একজন মানুষ, সচেতন-সুনাগরিক, মুমিন বান্দা।

দয়া করে বলবেন কি- শেষ কবে দু’হাত তুলে মন থেকে দেশ ও মানুষের জন্য দোয়া করেছেন? আর শুধুমাত্র দেশের জন্য কী কী করছেন? আমরা যদি “মিছা-মিছি”, “লোক দেখানো” ভাবেও এটা করে থাকি; তবুও তো দিনে অন্তত দশবার বলি- আলহামদুলিল্লাহ! বেশ ভাল আছি। (এটাও নবীর সুন্নত!) দিনে দশবার আমাদের ভাল ভাল স্বপ্নগুলোর কথা চিন্তা করি, দেশ ও দশের কল্যাণ কামনা করি। আপনি কতবার করেন?

তাই সর্বশেষ একটা কথা বলি- আপনি খুব সাধারণ একজন। খুব বড় কিছু হবার ইচ্ছা বা স্বপ্ন আপনার নেই। খুব ভাল কথা! আপনি থাকেন সাধারণ হয়ে। কিন্তু আরেকজনকে কেন পেছন থেকে টেনে নামাচ্ছেন যাতে সে অসাধারন কিছু, নতুন কিছু করতে না পারে! কেন? আপনি-আমি-আমরা কেউই তো সবজান্তা নই। তাহলে আপনি আপনার পথে হাঁটুন; আমার পথে তো আপনি হাঁটেননি! তাহলে আমার ভবিষ্যত আপনাকে গননা করার দায়িত্ব কে দিয়েছে? এখনও সময় আছে- নিজের চরকায় তৈল দিন। কোন কিছু সম্পর্কে জানেন না- সেটা দোষের নয়।

কিন্তু আংশিক বা কিছু না জেনেই “সবজান্তা” ভাব ধরে মন্তব্য করা রীতিমত শাস্তি যোগ্য অপরাধ! আমাকে নয় নিজের বিবেককে প্রশ্ন করুন একবার। এই পোষ্টের নিচে আমাকে জব্দ করার জন্য যুতসই একটা কমেন্টে কি লিখবেন, সেটা না হয় একটু পরেই ভাবলেন!

-সফিক এহসান
২০/১১/১২ ইং

(বিঃদ্রঃ এই পোষ্টের নিচে কমেন্ট করতে হলে কেবল মাত্র পোষ্টে উল্লেখিত বিষয় বা প্রশ্নের প্রেক্ষিতে মন্তব্য করবেন। কারো আঁতলেমী কাম্য নয়।)