ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলার আর্কাইভ থেকে কিছু ভিডিওচিত্র হারিয়ে গেছে বা চুরি হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানটির প্রশাসনিক কর্মকর্তা বাদী হয়ে আজ রোববার তেজগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে।

তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান প্রথম আলো ডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আমরা যারা সাধারণ মানুষ তাদের আর বুঝতে বাকী নেই যে, এই হত্যাকাণ্ডের সাথে এ.টি.এন বাংলার চেয়ারম্যান জড়িত,

কিন্তু তাকে এরেস্ট করছে না কেন? এই প্রশ্নের উত্তর খুবই সহজ ও সরল এর সাথে সরকারের বিশেষ মহল জড়িত।

আমাদের সরকার প্রধানকে নিয়ে কুটুক্তি করার পর সরাষ্ট মন্ত্রী বললেন মামলা হলেই এরেস্ট হবে, কিন্তু মামলা হল আবার তাহা প্রত্যাহার হল, আবার মামলা হইতেছে কত যে নাটক আমরা বাংলার মিডিয়াতে প্রতিনিয়ত দেখতেছি। এই মামলা প্রত্যাহার করে আওয়ামী লিগ প্রমাণ করল প্রধানমন্ত্রী আসলেই বাচাল।

সত্য কখনো গোপন থাকেনা , একদিন প্রকাশ হবেই হবে।

পরিশেষে বলবো মাহফুজুর রহমানের কালো হাত থেকে মিডিয়াকে বাঁচাতে হলে দেশ প্রেমিক সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তুলতে হবে।