ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

 

”আমাদের গ্রাম খানি ছবির মতন
মাটির তলায় এর ছড়ানো রতন”।।

মনে পরে কবির এই পংতি দিয়েই আমাদের গ্রাম বিষয়ক রচনা লেখা শুরু করতাম। সত্যি ছবির মত গ্রাম, সবুজের সমারোহ , শরতে শিউলির মন মাতান গন্ধ, হেমন্তে ধান কাটার উৎসব, আশ্বিন এ দুর্গা পুজার মহাউৎসব, পউষে পিঠা পুলির মৌ মৌ গন্ধ, খেজুরের রস, বর্ষার নতুন জলে ঝাপুতি খেলা, বসন্তে গাছে গাছে নতুন পাতা, বাতাবি ফুলের মন মাতোয়ারা ঘ্রান, রচনা লিখতে বসে কখনই পার্থক্য খুজে পাইনি। আমাদের পাশাপাশি দুটো গ্রাম, নামের ভিন্নতা থাকলেও গ্রাম দুটিকে আলাদা করে দেখার সুযোগ ছিলনা,গ্রামে একটি বাজার যেন সম্প্রীতির মিলন মেলা। বাজারের পাশেই বড় ফুটবল মাঠ, দেশের স্বনামধন্য টিম গুলো আসতো এখানে খেলতে। শুনেছি কলকাতার মোহামেডান এই মাঠে কয়েকবার খেলেছে। মাঠটির পাশেই প্রাইমারী স্কুল, মহান শিক্ষকদের গুণে এবং মেধাবী স্টুডেন্টদের কল্যাণে স্কুল টির পরিচিতি জেলার গণ্ডি পেরিয়েছিল।

৯০ দশকের শেষ এ হাওয়া বদলের সাথে সাথে গ্রাম্য রাজনীতির আমূল পরিবর্তন, নোংরা রাজনীতির পাঁকে একপেশে করে দিলো সমাজের মুক্তচিন্তার মানুষ গুলোকে, পেশি শক্তির উদ্ভব ঘটলো , মোড়ক উন্মোচিত হোল নতুন নতুন নেশা দ্রব্যের…যুব সমাজের অবক্ষয়ের নতুন মাত্রা যোগ হল। মাঠ থেকে হারিয়ে গেলো খেলাধুলা,সাংস্কিতিক আবহ নোংরা রাজনীতির পঙ্কিলতায় ঢেকে গেলো নিমিষেই।

এখনো মাটির টানেই গ্রামে যাই… কবির পংতির সাথে মিলাতে পারিনা কিছুই… স্বপ্ন দেখি আবারো আমাদের গ্রামটি আগের মতো হয়ে উঠবে।