ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

হলমার্ক কেলেংকারিতে দেশ যখন উত্তাল আর আমাদের অর্থমন্ত্রী তখন বললেন চার হাজার কোটি টাকা খুব বেশী নয়। আসলে উনি কি বলতে চেয়েছিলেন আমার বোধগম্য নয়। কত টাকা হলে উনি এটাকে দূর্নীতি বলবেন জানিনা। একটা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে চার হাজার কোটি টাকা অনেক বড় বিষয় যা আমাদের মাননীয় অর্থমন্ত্রীর কাছে কিছুই না। ভাবতে খারাপ লাগে এমন এক পাগল লোক বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী! এই পাগল লোকটা কথা বললেই শেয়ার বাজারের বারোটা বেজে যায় এর প্রমাণ দেশবাসী অনেকবার দেখেছে। আজ জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে তিনি ক্ষমা চেয়েছেন। তিনি নিজেকে সবচেয়ে ঘৃণিত ব্যক্তি বলে মন্তব্য করেছেন। আমার মতে তিনি একথা বলে পার পেতে পারেন না। দেশের অর্থনীতির প্রাণ কেন্দ্র পুঁজিবাজার আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। আর এর মুলে অর্থমন্ত্রীর ‘টোটালী রাবিশ’ কথাবার্তা। উনি চুপ থাকতে পারেন না কেন? উনার সমস্যাটা কোথায়? যদি চুপ থাকতে নাই পারেন তবে বিদায় নেন। জাতি হিসাবে আমরা আর আপনার মত অ, রাবিশ মন্ত্রী চাইনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ হয় এ পাগলটাকে পাগলা গারদে পাঠিয়ে দিন নতুবা উনার মুখে টেপ লাগিয়ে মুখটা বন্ধ করে দিন।